করোনায় বিশ্বে ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু ৯ হাজার

বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে পড়া করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাব দেখা দেয়ার নয় মাস পেরিয়ে গেছে। ইতিমধ্যে ভাইরাসটিতে ভুগে সোয়া ১০ লাখের বেশি মানুষের প্রাণহানি ঘটেছে। এর মধ্যে গত একদিনেই প্রায় ৯ হাজার। নতুন করে করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছে ৩ লাখে বেশি মানব দেহে। ফলে আক্রান্তের সংখ্যা ৩ কোটি ৪৪ লাখ ছাড়িয়ে গেছে। এমন অবস্থা অব্যাহত থাকলে কার্যকরি ভ্যাকসিন হাতে পাওয়া পর্যন্ত মৃতের সংখ্যা ২০ লাখ ছাড়াবে বলে আশঙ্কা করছেন বিশ্লেষকরা।

বিশ্বখ্যাত জরিপ সংস্থা ওয়ার্ল্ডওমিটারের নিয়মিত পরিসংখ্যানে বলা হয়েছে, গত ২৪ ঘণ্টায় ৩ লাখ ১৯ হাজার ৪০৬ জনের শরীরে করোনা শনাক্ত হয়েছে। এতে করে করোনাক্রান্তের সংখ্যা ৩ কোটি ৪৪ লাখ ৬৯ হাজার ৯৬৭ জনে দাঁড়িয়েছে। নতুন করে প্রাণ ঝরেছে ৮ হাজার ৯২২ জনের। এ নিয়ে এখন পর্যন্ত মৃতের সংখ্যা ১০ লাখ ২৭ হাজার ১৩৩ জনে ঠেকেছে।

অন্যদিকে গত একদিনে সুস্থতা লাভ করেছেন ২ লাখ ৩৯ হাজারের বেশি রোগী। এতে করে করোনামুক্ত হওয়ার সংখ্যা বেড়ে ২ কোটি ৫৬ লাখ ৬১ হাজার ৫৪৫ জনে পৌঁছেছে।

গত বছরের ডিসেম্বরে চীনের হুবেই প্রদেশের উহান শহরে প্রথম মানবদেহে করোনা ভাইরাস শনাক্ত হয়। এরপর দেশটিতে এ ভাইরাসে অস্বাভাবিকভাবে প্রাণহানি ঘটে। এর পরপরই চলতি বছরের ফেব্রুয়ারিতে ইউরোপের দেশগুলোতে করোনা ভাইরাসে সংক্রমণ মাত্রা ছাড়ায়। সে সব দেশে করোনা ভাইরাস কিছুটা নিয়ন্ত্রণে আসলেও উত্তর ও দক্ষিণ আমেরিকার দেশগুলোতে এখনও ক্রমশ বেড়েই চলছে কোভিড-১৯ ভাইরাসে প্রাণহানি। ১১ মার্চ করোনাকে মহামারী ঘোষণা করে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা।

করোনায় এখন পর্যন্ত সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। যেখানে এখন পর্যন্ত ৭৪ লাখ ৯৪ হাজার ৬৭১ জন মানুষ করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। এর মধ্যে মারা গেছেন ২ লাখ ১২ হাজার ৬৬০ জন।

সংক্রমণের নিরিখে দুইয়ে থাকা ভারতে গত একদিনেও ৮১ হাজারের বেশি করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছে। এতে করে আক্রান্তের সংখ্যা ৬২ লাখ ৯১ হাজার ৯৬০ জনে পৌঁছেছে। এর মধ্যে প্রাণহানি ঘটেছে ৯৯ হাজার ৮০৪ জনের।

প্রাণহানির তালিকায় দুই নম্বরে অবস্থান করা ব্রাজিলে সংক্রমিতের সংখ্যা ৪৮ লাখ ৪৯ হাজার ছাড়িয়ে গেছে। প্রাণহানি বেড়ে ১ লাখ ৪৪ হাজার ৭৬৭ জনে ঠেকেছে।
পৃথিবী বৃহত্তম দেশ রাশিয়ায় সংক্রমণের হার আগের মতোই। যেখানে এখন পর্যন্ত করোনার ভুক্তভোগী ১১ লাখ ৮৫ হাজার ২৩১ জন। মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ২০ হাজার ৮৯১ জনে।

কলম্বিয়ায় শনাক্ত ৮ লাখ ৩৫ হাজারের বেশি। এর মধ্যে মৃত্যু হয়েছে ২৬ হাজার ১৯৬ জনের।

পেরুতে আক্রান্ত ৮ লাখ ১৮ হাজার ছাড়িয়ে গেছে। যেখানে মৃতের সংখ্যা ৩২ হাজার ৫৩৫ জনে ঠেকেছে।

স্পেনে আক্রান্ত ৭ লাখ ৭৮ হাজার ছাড়িয়েছে। প্রাণ গেছে ৩১ হাজার ৯৭৩ জনের।

আর্জেন্টিনায় সংক্রমিতের সংখ্যা ৭ লাখ ৬৫ হাজার। মৃত্যু হয়েছে ২০ হাজার ২৮৮ জনের।

মেক্সিকোয় আক্রান্ত ৭ লাখ ৪৩ হাজারের বেশি। সেখানে প্রাণ গেছে ৭৭ হাজার ৬৪৬ জন মানুষের।

দক্ষিণ আফ্রিকায় সংক্রমিতের সংখ্যা ৬ লাখ ৭৬ হাজারের বেশি। মৃত্যু হয়েছে ১৬ হাজার ৮৬৬ জনের।

ফ্রান্সে করোনার ভুক্তভোগী ৫ লাখ ৭৭ হাজার ৫০৫ জন। এর মধ্যে প্রাণহানি ঘটেছে ৩২ হাজার ১৯ জনের।

চিলিতে করোনা হানা দিয়েছে ৪ লাখ ৬৪ হাজার ৭৫০ জন মানুষের দেহে। এর মধ্যে ১২ হাজার ৮২২ জনের মৃত্যু হয়েছে।

ইরানে করোনার শিকার ৪ লাখ ৬১ হাজারের বেশি মানুষ। প্রাণহানি ঘটেছে ২৬ হাজার ৩৮০ জনের।

যুক্তরাজ্যে সংক্রমিতের সংখ্যা ৪ লাখ ৬০ হাজার ছাড়িয়েছে। যেখানে প্রাণ ঝরেছে ৪২ হাজার ২০২ জন ভুক্তভোগীর।

ইরাকে করোনার ভুক্তভোগী ৩ লাখ ৬৭ হাজার ৪৭৪ জন মানুষ। এর মধ্যে প্রাণহানি ঘটেছে ৯ হাজার ২৩১ জনের।

এদিকে বাংলাদেশে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের দেয়া তথ্য মতে, গতকাল বৃহস্পতিবার পর্যন্ত আক্রান্তের সংখ্যা ৩ লাখ ৬৪ হাজার ৯৮৭ জন। এর মধ্যে প্রাণহানি ঘটেছে ৫ হাজার ২৭২ জনের।

বৈশাখী নিউজএপি