ওমিক্রন বিশ্বের ৮৯ দেশে দ্বিগুণ হারে ছড়াচ্ছে

করোনা ভাইরাসের নতুন ধরন ওমিক্রন এখন বিশ্বের ৮৯টি দেশে পৌঁছে গেছে। ক্রমেই দ্রুততায় নানা দেশে ছড়িয়ে পড়ছে অতি সংক্রমণশীল এ ধরন। শনিবার বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (হু) এসব তথ্য জানিয়েছে।

হু বলছে, বিদেশ থেকে নয়, বরং স্থানীয়ভাবে প্রতি তিনদিনে ওমিক্রন দ্বিগুণ সংক্রমণ ঘটাচ্ছে। খবর বার্তাসংস্থা এপির।

সংস্থাটি বলছে, যে হারে ওমিক্রনের সংক্রমন বাড়ছে, তাতে বিভিন্ন দেশে ডেল্টাকে ছাড়িয়ে করোনার সবচেয়ে প্রভাবশালী ধরন হয়ে উঠতে পারে ওমিক্রন।

স্বাস্থ্য সংস্থাটি বলছে, যেসব দেশে করোনার টিকা গ্রহণের হার অনেক বেশি এবং জনসংখ্যার একটি বড় অংশ করোনা থেকে সেরে উঠেছেন, সেসব দেশেও এ ধরনটি দ্রুত ছড়িয়ে পড়ছে।

হু বলছে, করোনার অন্য ধরনগুলো থেকে ওমিক্রন অনেক বেশি সংক্রামক। এ ধরনটি মানবদেহের কিছুটা রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাকে পরাজিত করতে সক্ষম।

তবে একটি প্রশ্ন এখনও জবাব মেলেনি। এ ওমিক্রন ঠেকাতে করোনার প্রচলিত ভ্যাকসিন বা টিকা আসলে কতোটুকু কার্যকর?

এ ছাড়া আরও একটি বিষয় নিয়ে থেকে গেছে ধোঁয়াশা। তা হলো- এখন পর্যন্ত প্রাপ্ত তথ্য থেকে এটা পরিষ্কার হয় না যে, ওমিক্রন একজন রোগীকে ঠিক কতোখানি গুরুতর অসুস্থতার দিকে ঠেলে দেয়।

এর আগে গত ২৬ নভেম্বর বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা ওমিক্রনকে ‘উদ্বেগের ধরন’ বলে বর্ণনা করে।

গত মাসের শুরুতে দক্ষিণ আফ্রিকায় প্রথম শনাক্ত হয় ওমিক্রন। পরে মাসের শেষ দিকে দেশটি আনুষ্ঠানিকভাবে ওমিক্রনের কথা ঘোষণা করে।

এক মাসের মধ্যে করোনার এ ধরনটি বিশ্বের অনেক দেশে ছড়িয়ে পড়েছে। এটি সবচেয়ে বেশি আঘাত হানছে ইউরোপের দেশগুলোতে। বিশেষ করে, যুক্তরাজ্যে ওমিক্রনের প্রভাবে সংক্রমণের নতুন রেকর্ড হচ্ছে প্রতিদিনই।

বৈশাখী নিউজ/ বিসি