ভেনিজুয়েলায় যাচ্ছে ইরানি তেল; হুমকি দিল আমেরিকা

ইরানি জ্বালানি তেলবাহী একটি জাহাজ ভেনিজুয়েলায় যাচ্ছে বলে খবর প্রকাশিত হওয়ার পর আমেরিকা উষ্মা প্রকাশ করেছে।

ইরান ও ভেনিজুয়েলা- এই দুই দেশের জ্বালানি খাতের ওপরই আমেরিকার একতরফা নিষেধাজ্ঞা রয়েছে।একজন মার্কিন কর্মকর্তা বলেছেন, এই ‘অনাহূত’ ঘটনার বিরুদ্ধে ‘ব্যবস্থা’ নেবে ওয়াশিংটন।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ইরানি পতাকাবাহী তেল ট্যাংকার ‘ক্ল্যাভেল’ ল্যাটিন আমেরিকার দেশ ভেনিজুয়েলার উদ্দেশ্যে যাত্রা শুরু করেছে। খবরে বলা হয়েছে, ট্যাংকারটি গত মার্চ মাসের শেষ নাগাদ ইরানের বন্দরআবাস শহর থেকে তেল সংগ্রহ করে এবং বুধবার এটি সুয়েজ খাল অতিক্রম করে আটলান্টিক মহাসাগরে প্রবেশ করেছে।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প প্রশাসনের একজন কর্মকর্তা রয়টার্সকে বলেছেন, ইরানের তেল বিক্রির এই প্রচেষ্টার বিরুদ্ধে ওয়াশিংটন ব্যবস্থা নেয়ার কথা বিবেচনা করছে। তবে বার্তা সংস্থাটি ওই কর্মকর্তার নাম প্রকাশ করেনি। কর্মকর্তাটি বলেন, মার্কিন সরকার ‘এ ব্যাপারে প্রায় নিশ্চিত’ যে, আর্থিক সংকটে জর্জরিত ভেনিজুয়েলা সরকার এই তেলের বিনিময় হিসেবে ইরানকে স্বর্ণ প্রদান করবে।

অজ্ঞাত ওই মার্কিন কর্মকর্তা দাবি করেন, “এটি যে শুধু আমেরিকার কাছে একটি অনাহূত বিষয় তাই নয় বরং ল্যাটিন আমেরিকার দেশগুলির কাছেও এ ঘটনা অনভিপ্রেত। আমরা ভেবে দেখছি এর বিরুদ্ধে কি পদক্ষেপ নেয়া যায়।” ২০১৮ সালের মে মাসে আমেরিকা ইরানের পরমাণু সমঝোতা থেকে বেরিয়ে গিয়ে তেহরানের ওপর কঠোর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে। তবে ওই বছরই ইরানের শীর্ষ নেতৃত্ব ঘোষণা করেন, দেশটির যখন যতটুকু তেল রপ্তানির প্রয়োজন হবে তখন ততটুকু তেল রফতানি করবে এবং তা কেউ ঠেকিয়ে রাখতে পারবে না।খবর রয়টার্সের।

বৈশাখী নিউজজেপা