মোদি-অমিতের বৈঠক, আজ ফের ভারতে লকডাউনের ঘোষণা আসতে পারে

সময়: 8:18 am - May 30, 2020 | | পঠিত হয়েছে: 3 বার

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ বৃদ্ধিতে ভারতে প্রতিদিন নতুন নতুন রেকর্ড তৈরি হচ্ছে। লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা। তার মধ্যেই আগামীকাল রবিবার শেষ হচ্ছে চতুর্থ দফার লকডাউন। এই পরিস্থিতিতে পরবর্তী রণকৌশল কী? তা স্থির করতেই শুক্রবার ভারতের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের সঙ্গে পরিস্থিতি পর্যালোচনা করলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি।

আরও দু’সপ্তাহ লকডাউন বাড়ানোর সম্ভাবনা থাকলেও এ নিয়ে এখনও চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত হয়নি বলেই দেশটির স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ও প্রধানমন্ত্রীর দফতর সূত্র জানিয়েছে। চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত ঘোষণা হতে পারে আজ শনিবার। এর আগে বৃহস্পতিবার প্রথমে ক্যাবিনেট সচিব রাজীব গৌবা রাজ্যগুলোর মুখ্যসচিব ও স্বাস্থ্যসচিবদের সঙ্গে বৈঠক করেন। ওই বৈঠকে রাজ্যের করোনা সংক্রমণ ও নিয়ন্ত্রণ পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনা হয়। তারপর রাতে মুখ্যমন্ত্রীদের ফোন করে লকডাউন নিয়ে তাদের মতামত জানতে চান স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। মুখ্যমন্ত্রীরাও তাদের মতামত জানিয়েছেন।

শুক্রবারের বৈঠক সূত্রে জানানো হয়েছে, মুখ্যমন্ত্রীদের মতামত প্রধানমন্ত্রী মোদিকে বিশদে জানিয়েছেন অমিত শাহ। পাশাপাশি করোনাভাইরাসের সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে রেখেও অর্থনৈতিক কাজকর্মে কীভাবে আরও গতি আনা যায়, তা নিয়ে আলোচনা হয়েছে বলেও বৈঠক সূত্রে জানা গেছে।

প্রায় প্রত্যেক দফার লকডাউন বাড়ানোর আগে মুখ্যমন্ত্রীদের সঙ্গে ভিডিও বৈঠক করেছেন প্রধানমন্ত্রী। কিন্তু এই দফায় এখন পর্যন্ত তেমন কোনও বৈঠকের খবর নেই। স্বাস্থ্য সংক্রান্ত বিষয় রাজ্যের এক্তিয়ারে পড়ে। কিন্তু বিপর্যয় মোকাবিলা আইন কার্যকর করায় এ বিষয়ে কেন্দ্র সিদ্ধান্ত নিতে পারে। এই নিয়েই বিভিন্ন রাজ্যের পক্ষ থেকে অভিযোগ উঠছিল যে, জাতীয় বিপর্যয় মোকাবিলা আইনের অজুহাতে রাজ্যের এক্তিয়ারে হস্তক্ষেপ করছে কেন্দ্র।

তাই কিছুটা সাবধানে এবং সহযোগিতার বার্তা দিয়েই কেন্দ্র এগোতে চাইছে বলে রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকদের মত। অন্য দিকে চার দফায় লকডাউন করেও কার্যত কোনও ফল হয়নি বলে অভিযোগ তুলে কেন্দ্রের বিরুদ্ধে সরব হয়েছে বিরোধীরা। কংগ্রেস সাংসদ রাহুল গান্ধী বুধবারও বলেছেন, সরকারের লকডাউন ফর্মুলা ব্যর্থ হয়েছে। পরবর্তী রণকৌশল কী, তা স্পষ্ট করুক কেন্দ্র। ফলে লকডাউনের সিদ্ধান্তের ক্ষেত্রে এই বিষয়টিও মাথায় রাখতে হচ্ছে কেন্দ্রকে। সূত্র : আনন্দবাজার পত্রিকা।

বৈশাখী নিউজজেপা

Share Now

এই বিভাগের আরও খবর