সরকারের স্বাস্থ্য ব্যবস্থা ভালো বলে মৃত্যুহার কম : তথ্যমন্ত্রী

দেশের স্বাস্থ্য ব্যবস্থাপনা ভালো বলে প্রাণঘাতী করোনায় মৃত্যুর হার কম বলে দাবি করেছেন তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ। তিনি বলেছেন, সরকারের সুদক্ষ ব্যবস্থাপনার কারণেই বাংলাদেশে করোনাভাইরাসে মৃত্যুহার ইউরোপ-আমেরিকার চেয়ে অনেক কম। স্বাস্থ্য ব্যবস্থাপনা উন্নত না হলে মৃত্যুহার ভারত-পাকিস্তানের মতো বা তার চেয়ে বেশি হতো।

শনিবার (৩০মে) আওয়ামী লীগ সভাপতির ধানমণ্ডির রাজনৈতিক কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন।

এ সময় আওয়ামী লীগের স্বাস্থ্য বিষয়ক সম্পাদক রোকেয়া সুলতানা, উপ-প্রচার সম্পাদক আমিনুল ইসলাম আমিন, দপ্তর সম্পাদক বিপ্লব বড়ুয়া, উপ-দপ্তর সম্পাদক সায়েম খান উপস্থিত ছিলেন।

বিভিন্ন দেশের করোনার পরিসংখ্যান টেনে হাছান মাহমুদ বলেন, পাকিস্তানে করোনা সংক্রমণের হার আমাদের চেয়ে বেশি। ভারতে সংক্রমণ চীনকে ছাড়িয়ে গেছে। আর বেলজিয়ামে সংক্রমিতদের মৃত্যুহার ১৫ শতাংশ, বৃটেনে ১৪, যুক্তরাষ্ট্রে ৬, ভারতে ৩ দশমিক ২, পাকিস্তানে ২ এর বেশি আর আমাদের দেশে ১ দশমিক ৩৬ শতাংশ।

বিএনপি নেতাদের বলবো, বাংলাদেশে করোনাভাইরাসে মৃত্যুহার ইউরোপ-আমেরিকার চেয়ে অনেক কম। কিন্তু রুহুল কবির রিজভী সাহেবসহ বিএনপি নেতারা যেভাবে কথাবার্তা বলছেন, তাতে মনে হয় তারা বিশ্ব স্বাস্থ্যসংস্থার উপদেষ্টার দায়িত্ব পেয়েছেন। আপনারা আশপাশের দেশের দিকে তাকান।

প্রধানমন্ত্রীর প্রশংসা করে তথ্যমন্ত্রী বলেন, করোনা থেকে সুরক্ষার জন্য সরকারি ছুটি ঘোষণার পর থেকে প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা দেশে ইতিহাসের বৃহত্তম ত্রাণ কার্যক্রম শুরু করেন। সরকারের ব্যবস্থাপনায় ছয় কোটি মানুষ ত্রাণ ও আরো এক কোটি মানুষ নানা সহায়তা পেয়েছেন। পাশাপাশি আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে ১ কোটি ২০ লাখ পরিবারকে ত্রাণ দেয়া হয়েছে, যা অভাবনীয়।

এসময় জিয়াউর রহমান হত্যাকাণ্ড নিয়েও কথা বলেন তথ্যমন্ত্রী। বলেন তার (জিয়াউর রহমানের) হত্যার পরে তার স্ত্রী বেগম খালেদা জিয়া প্রধানমন্ত্রী হিসেবে ১০ বছর ক্ষমতায় ছিলেন। আরও একবার তিনি একটি বিতর্কিত নির্বাচনের মাধ্যমে ক্ষমতা কুক্ষিগত করার চেষ্টা করেছিলেন। তখন তিনি এক মাসের মতো ক্ষমতায় ছিলেন। এটা সত্যি রহস্যজনক কেন জিয়াউর রহমানের হত্যাকাণ্ডের বিচারটা বেগম খালেদা জিয়া করলেন না।

বৈশাখী নিউজজেপা