যুক্তরাষ্ট্রের পুলিশে সংস্কার চাইলেন ওবামা

পুলিশের হাতে কৃষ্ণাঙ্গ যুবক জর্জ ফ্লয়েড হত্যাকাণ্ডের জেরে বিক্ষোভে উত্তাল মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। এই আন্দোলনে সমর্থন দিয়েছেন সাবেক চার রাষ্ট্রপতি। তবে শুধু সায় দিয়েই ক্ষান্ত হননি বিক্ষোভ অব্যাহত রাখতে ও পুলিশ বাহিনীতে সংস্কার চেয়েছেন সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা। সপ্তাহজুড়ে চলা বিক্ষোভ নিয়ে এবারই প্রথম প্রকাশ্যে মুখ খুললেন তিনি। খবর সিএনএনের।

ওবামা বলেন, ‘চলমান বিক্ষোভে কয়েকজন হয়তো সহিংস আচরণ করছেন কিন্তু বাকিরা সঠিক পথেই আছেন। আমেরিকার জন্ম হয়েছে প্রতিবাদের মধ্যদিয়ে, যা আমেরিকান অভ্যুত্থান নামে পরিচিত।’

সাবেক এ প্রেসিডেন্ট বলেন, ‘মার্টিন লুথার কিং জুনিয়র, চেজার চাভেজ এবং ম্যালকম দশমের মতো ব্যক্তিরা যুবক বয়সেই বিক্ষোভ করেছিলেন এবং সফল হয়েছিলেন। বর্তমান যুবকরাও বিক্ষোভের মাধ্যমে দেশে পরিবর্তন আনতে পারবেন। এর মাধ্যমেই দেশের উন্নতি, মত প্রকাশের স্বাধীনতা এবং আদর্শ বজায় থাকবে।’

পুলিশে সংস্কারের ব্যাপারে ওবামা বলেন, ‘পুলিশের কিছু ইউনিয়ন ছাড়া সবাই সংস্কারের ব্যাপারে ইতিবাচক। পুলিশ বাহিনীতে সংস্কারের জন্য আটটি পদক্ষেপের কথা তুলে ধরে ওবামা বলেন, এর মাধ্যমে দেশে সহিংসতা কমবে।’

চলমান বিক্ষোভে সমর্থন জানান আরও ৩ প্রেসিডেন্ট। জর্জ ডব্লিউ বুশ, বিল ক্লিনটন ও জিমি কার্টার। সব সীমাবদ্ধতাকে মোকাবেলা করে বর্ণবাদের বিরুদ্ধে জনগণকে একত্রিত হওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন তারা।

উল্লেখ্য, গত ২৫ মে যুক্তরাষ্ট্রের মিনেসোটা অঙ্গরাজ্যের বৃহত্তম শহর মিনিয়াপোলিসতে শেতাঙ্গ পুলিশের হাতে জর্জ ফ্লয়েড নামে এক কৃষ্ণাঙ্গ নাগরিক হত্যাকাণ্ডের শিকার হন। এরপর থেকে বিক্ষোভে উত্তাল যুক্তরাষ্ট্র। চলে ভাঙচূর ও লুটপাটও। গ্রেফতার হয়েছেন ১০ হাজারেরও বেশি বিক্ষোভকারী।

বৈশাখী নিউজইডি