শুক্রবার নিউজিল্যান্ডের সঙ্গে ক্রিকেট যুদ্ধে বাংলাদেশ

স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষে আনন্দে মেতেছে বাঙালি।

এই দিনেই নিউ জিল্যান্ডের বিপক্ষে মাঠে নামবেন তামিম-মুশফিকরা। লাল সবুজের প্রতিনিধিদের এই ম্যাচে জয় সুবর্ণজয়ন্তীর আনন্দ দিগুণ করে দিতে পারে।

শুক্রবার (২৬ মার্চ) বাংলাদেশ সময় ভোর ৪টায় ওয়েলিংটনের বেসিন রিজার্ভে ওয়ানডে সিরিজের তৃতীয় ম্যাচে নিউ জিল্যান্ডের মুখোমুখি হবে বাংলাদেশ। প্রথম দুই ম্যাচ হেরে সিরিজ আগেই খুইয়েছে তামিম ইকবালের দল। সিরিজ বিবেচনায় নিলে এই ম্যাচের কোনো গুরুত্ব নেই তবে ওয়ানডে সুপার লিগের হিসেব টানলে প্রতিটা ম্যাচই সমান গুরুত্বপূর্ণ।

পাঁচ ম্যাচে তিন জয়ে ওয়ানডে সুপার লিগে বাংলাদেশের অবস্থা দুই নম্বরে আছে। এই ম্যাচে জয়ের দেখা পেলে জায়গাটি আরও পাকাপোক্ত হবে, যেতে পারে প্রথম স্থানেও। আর না হয় নিউ জিল্যান্ড দখলে নেবে বাংলাদেশের স্থান। দুই ম্যাচে নিউ জিল্যান্ডের পয়েন্ট ২০, কাল জিতলেই হবে ৩০। নেট রান রেটে এগিয়ে থেকে সমান ৩০ পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে যাবে কিউইরা। বাংলাদেশের নেট রান রেট ০.৫৯৩ ও নিউ জিল্যান্ডের ১.৮২২। তাই এই ম্যাচটি তামিমদের জন্য হেলাফেলার নয়।

সিরিজের প্রথম ম্যাচে বিব্রতকর ব্যাটিংয়ের পর দ্বিতীয় ম্যাচে ঘুরে দাঁড়িয়েছিল বাংলাদেশ। তামিমের দারুণ শুরুর পর মোহাম্মদ মিথুনের দুর্দান্ত ব্যাটিংয়ে চ্যালেঞ্জিং স্কোর ছুঁড়ে দিয়েছিল রাসেল ডমিঙ্গোর শিষ্যরা। দ্রুত ৩ উইকেট তুলে নিয়ে দেখিয়েছিল জয়ের স্বপ্ন কিন্তু গুরুত্বপূর্ণ সময়ে ক্যাচ মিস করায় হার নিয়ে মাঠ ছাড়তে হয়।

কিউইদের মাটিতে জয়ের জন্য ভালো ব্যাটিংয়ের কোনো বিকল্প নেই। দায়িত্ব নিতে হবে দলের অভিজ্ঞ ও প্রথমসারির ব্যাটসম্যানদের। কীভাবে ব্যাটিং করতে হবে শিষ্যদের মন্ত্র দিয়েছেন ব্যাটিং কোচের দায়িত্বে থাকা গুরু জন লুইস। জানিয়েছেন ঝুঁকি নিয়েই খেলতে হবে শট।

‘আমরা যদি প্রথমে ব্যাট করি, তাহলে আমাদের চিন্তা করতে হবে নতুন বলে কী ঘটতে যাচ্ছে। তাদের আছে ট্রেন্ট বোল্ট ও এই ম্যাচে যদি টিম সাউদি আসে, তাহলে তারা পাবে শক্তিশালী পারফর্মারদের। আমাদের নিশ্চিত করতে হবে যেন তারা শুরুতেই আমাদের বেশি ক্ষতি না করতে পারে। যদি বড় স্কোর তাড়া করতে হয়, তাহলে পাওয়ার প্লের ফায়দা নিতেই হবে, কিছু ঝুঁকি নিতে হবে, খেলতে হবে কিছু শট।’

‘আমি মনে করি বিদেশের মাটিতে বাংলাদেশি ব্যাটসম্যানদের অন্যতম দিক হল নতুন বল ও বাউন্সের সাথে মানসম্পন্ন পেসারদের সামলানো। তামিম দলের অন্য অনেকের চেয়ে অভিজ্ঞ ব্যাটসম্যান। ইনিংসের শেষদিকের জন্য ভিত্তিটা সেই গড়ে দিতে পারে’-আরও যোগ করেন লুইস।

বৈশাখী নিউজইডি