ভিয়েনা বৈঠকে উপস্থিত থাকবে না আমেরিকা : ইরান

ইরান বলেছে, পরমাণু সমঝোতায় ফিরে আসার জন্য আমেরিকার সামনে একটির বেশি পথ খোলা নেই; কাজেই এ সংক্রান্ত কোনো আলোচনায় দেশটির অংশগ্রহণের প্রয়োজন আছে বলে তেহরান মনে করে না। ইরান আরো বলেছে, কেবলমাত্র নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করার মাধ্যমে মার্কিন সরকার পরমাণু সমঝোতায় ফিরে আসতে পারে।

ইরানের সংসদের জাতীয় নিরাপত্তা ও পররাষ্ট্রনীতি বিষয়ক কমিশনের মুখপাত্র আবুল-ফজল আমুয়ি রোববার বার্তা সংস্থা ইরানপ্রেসকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে এ কঠোর বক্তব্য তুলে ধরেন। তিনি বলেন, আগামী মঙ্গলবার ভিয়েনায় অনুষ্ঠেয় বৈঠকে ব্রিটেন, ফ্রান্স, জার্মানি, চীন, রাশিয়া ও ইরান অংশ নেবে এবং সেখানে কোনো মার্কিন প্রতিনিধি উপস্থিত থাকবে না।

মার্কিন সরকার পরমাণু সমঝোতায় ফিরে আসার জন্য একটি রোড ম্যাপ প্রস্তুত করেছে এবং তা ভিয়েনা বৈঠকে উপস্থাপন করবে বলে যে খবর বেরিয়েছে সে সম্পর্কে আমুয়ি বলেন, ইরান আমেরিকাকে পরমাণু সমঝোতার কোনো পক্ষ মনে করে না; কারণ দেশটি আইন লঙ্ঘন করে একতরফাভাবে এই সমঝোতা থেকে বেরিয়ে গেছে।

ইরানের এই সিনিয়র সংসদ সদস্য আরো বলেন, ‘স্টেপ বাই স্টেপ’ বা পর্যায়ক্রমে আমেরিকা পরমাণু সমঝোতায় ফিরবে বলে যে দাবি করছে তাও তেহরানের কাছে গ্রহণযোগ্য নয়। ইরানের দৃষ্টিতে ‘স্টেপ’ একটিই আর তা হচ্ছে সব নিষেধাজ্ঞা একবারে প্রত্যাহার করে আমেরিকার পরমাণু সমঝোতায় ফিরে আসা।

আবুল-ফজল আমুয়ি এমন সময় আসন্ন ভিয়েনা বৈঠকে আমেরিকা উপস্থিত থাকবে না বলে জানালেন যখন এর আগে বলা হয়েছিল, আমেরিকা ওই বৈঠকে অংশ নেবে কিন্তু ইরানের সঙ্গে কোনো দ্বিপক্ষীয় বৈঠকে মিলিত হবে না।

আগামী মঙ্গলবার ভিয়েনায় ইরানের সঙ্গে পরমাণু সমঝোতায় স্বাক্ষরকারী দেশগুলো বৈঠকে বসবে বলে কথা রয়েছে। প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের নেতৃত্বাধীন বর্তমান মার্কিন সরকার কীভাবে পরমাণু সমঝোতায় ফিরবে তা নিয়ে আলোচনা করা হবে ওই বৈঠকের মূল উদ্দেশ্য। সূত্র : পার্সটুডে

বৈশাখী নিউজজেপা