শীতলক্ষ্যায় লঞ্চডুবিতে ৫ নারীর মরদেহ উদ্ধার

শীতলক্ষ্যায় লাইটার জাহাজের ধাক্কায় এমভি রাবিত আল হাসান নামে একটি যাত্রীবাহী লঞ্চ অন্তত ৫০ জন যাত্রীসহ ডুবে গেছে। এতে এখন পর্যন্ত ৫ নারীর মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। উদ্ধার অভিযান অব্যাহত রেখেছে ফায়ার সার্ভিস ও বিআইডব্লিউটিএ-র উদ্ধারকারী ডুবুরী দল।

রোববার (৪ এপ্রিল) সন্ধ্যা ৬টার দিকে নারায়ণগঞ্জ থেকে ছেড়ে লঞ্চটি সোয়া ৬টার দিকে শীতলক্ষ্যা নদীতে সৈয়দপুর কয়লা ঘাট এলাকায় পৌঁছলে এসকে-থ্রি নামের ওই লাইটার জাহাজের ধাক্কায় লঞ্চটি ডুবে যায়।

ফায়ার সার্ভিসের উপপরিচালক আবদুল্লা আল আরেফিন জানান, ডুবে যাওয়া লঞ্চের ৫ জন নারী যাত্রীর মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। ফায়ার সার্ভিস ও ডুবুরী দলের উদ্ধার অভিযান চলমান রয়েছে। লঞ্চ থেকে সাঁতরে তীরে ওঠা আহতরা নারায়ণগঞ্জ ও মুন্সিগঞ্জের বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি আছেন।

নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসক মোস্তাইন বিল্লাহ জানান, লঞ্চ ডুবির ঘটনায় অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেটকে প্রধান করে ৭ সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করেছে জেলা প্রশাসন। নিহতদের পরিবারকে লাশ দাফন করার জন্য ২৫ হাজার টাকা করে দেয়া হবে। আহতদের হাসপতালে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। লঞ্চ ডুবিতে সাঁতরে প্রায় ২০ জন তীরে উঠেছে। বাকিদের উদ্ধারের চেষ্টা চলছে।

বৈশাখী নিউজজেপা