দেশের সীমান্ত বদলে দিলেন বেলজিয়ান কৃষক!

সীমান্ত নিয়ে বাংলাদেশের মানুষের অভিজ্ঞতা তিক্ত হলেও পৃথিবীর বহুদেশেই সীমান্তে কোনো তারকাটা নেই। নেই অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে পাহারা দেওয়া আলাদা বাহিনীও। তেমনই দুই দেশ বেলজিয়াম ও ফ্রান্স।

অতি সম্প্রতি এই দুই দেশে সীমান্ত নিয়ে ঘটেছে একটি মজার ঘটনা। বেলজিয়ামের স্থানীয় একজন কৃষক তার জমিতে চাষ করতে গিয়ে ট্রাক্টর চলার পথে একটি পাথর দেখে বিরক্ত হন। এরপর তিনি পাথরটি প্রায় সাড়ে ৭ ফুট দূরে সরিয়ে দেন তার জমি থেকে। এই ঘটে যায় অবাক করা এক ঘটনা।

বিবিসির এক খবরে বলা হয়, স্থানীয় ইতিহাসের এক উত্সাহী বেলজিয়ান নাগরিক বনে হাটার সময় খেয়াল করেন দুই দেশের সীমানা চিহ্নিত পাথরটি ২ দশমিক ২৯ মিটার বা সাড়ে সাতফুট ফ্রান্সের দিকে সরে গেছে।
তবে এই ঘটনায় কোনো ধরণের বিশৃঙ্খলা তো হয়-ই নি উল্টো হাসিমুখেই দুই পক্ষ থেকে বিষয়টির সমাধান হয়েছে।

বেলজিয়ামের এরকুইলিনস গ্রামের মেয়র ডেভিড ল্যাভক্স মজা করেই বলেন, “ওই কৃষক বেলজিয়ামকে বড় এবং ফ্রান্সকে ছোট বানিয়ে ফেলেছিল। এটা মোটেও ঠিক না।”

তিনি বলেন, “আমি খুশি ছিলাম ছিলাম যে আমার শহরটা বড় হয়ে গেছে।”

পার্শ্ববর্তী ফ্রান্সের গ্রাম অরিলি ওয়েলোনেক এর মেয়রও মজার ছলে বলেন, “আমাদেরকে একটি সীমান্ত যুদ্ধ পরিহার করতে সক্ষম হওয়া উচিত।”

ফ্রান্স এবং বর্তমানে বেলজিয়ামের সীমানা ৬২০ কিলোমিটার (৩৯০ মাইল) দীর্ঘ। ওয়াটারলু যুদ্ধে নেপোলিয়নের পরাজয়ের পরে ১৮২০ সালে স্বাক্ষরিত কর্টরিজকের চুক্তির মাধ্যমে আনুষ্ঠানিকভাবে প্রতিষ্ঠিত হয় এই সীমান্ত। পাথরটির গায়ের খোদাই অনুযায়ী এটি ১৮১৯ সালে স্থাপন করা হয়েছিল।

বিবিসি ভায়া দ্য বিজনেস স্ট্যান্ডার্ড

বৈশাখী নিউজ/ ইডি