মেসির বিরুদ্ধে আর্থিক অনিয়মের অভিযোগ খারিজ স্পেনের আদালতে

সুসময় সম্ভবত একেই বলে। কোপা আমেরিকার শিরোপা জিতে লিওনেল মেসি যেমন নিজের নামের পাশে শিরোপাহীনতার অপবাদ ঘোচালেন, তেমনি বার্সেলোনার সঙ্গে নতুন চুক্তি করেও একটি স্বস্তির সুবাতাস ছড়িয়ে দিয়েছেন আর্জেন্টাইন জীবন্ত কিংবদন্তি। এবার আইন ঝামেলা থেকেও মুক্তি মিলছে তার।

২০১২-১৩ মৌসুমে ৬৯ ম্যাচ খেলে অবিশ্বাস্য ৯১টি গোল করেছিলেন লিওনেল মেসি। সেটিই এতদিন পর্যন্ত তার সেরা সময় হিসেবে বিবেচনায় ধরা হত। কিন্তু না, এর চেয়েও ভালো সময় এখন কাটাচ্ছেন আর্জেন্টাইন মহাতারকা। ক্যারিয়ারের অধরা সোনার হরিণটা অবশেষে ধরা দিয়েছে।

বার্সার সঙ্গে চুক্তির ঝামেলা শেষ করার পর তার বিরুদ্ধে ওঠা আর্থিক তছরুপ এবং জালিয়াতির অভিযোগও খারিজ করে দিল স্পেনের আদালত।

২০২০ সালে স্পেনে বসবাস করা ফেডেরিকো রেত্তোরি নামে এক আর্জেন্টাইন নাগরিক মেসির বিরুদ্ধে আর্থিক তছরুপের অভিযোগে আদালতে মামলা দায়ের করেন। রেত্তোরির দাবি ছিল, তিনি মেসির স্বেচ্ছাসেবী সংস্থায় কাজ করতেন।

অভিযোগ ছিল, মেসির সংস্থা যে অর্থ পেত তা সরাসরি দান করে দেওয়াই নিয়ম। কিন্তু তা হয়নি। অনুদান পাওয়া অর্থ ব্যাঙ্কে ঢুকত কিংবা মেসির ব্যক্তিগত কাজে খরচ হত বলে অভিযোগ করেছিলেন রেত্তোরি।

কিন্তু এই অভিযোগের স্বপক্ষে কোনো প্রমাণ পাওয়া যায়নি। রেত্তোরিও প্রামাণ্য কোনো নথিও দেখাতে পারেননি। স্পেনের আদালত অভিযোগ খারিজ করে দেয়।

প্রসঙ্গতঃ ২০১৯ সালেও একই অভিযোগ করেছিলেন রেত্তোরি। সেবারও পাত্তা পাননি। এমনকি রেত্তোরি যে মেসির সংস্থায় কাজ করতেন এমন কোনো প্রমাণও পাওয়া যায়নি।

বৈশাখী নিউজ/ জেপা