দ্বিতীয় সেশনে নিউ জিল্যান্ডের দাপট

বাংলাদেশের বিপক্ষে সিরিজ দিয়ে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটকে বিদায় বলছেন রস টেলর। এরপর চলতি ক্রিকেট মৌসুম শেষেই ক্রিকেটকে গুডবাই বলবেন তিনি। বর্ণাঢ্য ক্যারিয়ারের শেষের শুরু হলো ৩১ রানের ঝকঝকে ইনিংস দিয়ে। ডানহাতি ব্যাটসম্যান চোখের পলকে দারুণ এক ইনিংস খেলে বিদায় নিলেন। তাকে থামান পেসার শরিফুল ইসলাম।

বাঁহাতি পেসারের বল কাভার ড্রাইভ করতে গিয়ে সাদমানের হাতে ক্যাচ দেন। এর আগের নিজের চিরাচরিত যতগুলো পুল ও কাট খেলেছেন প্রত্যেকটি থেকে বাউন্ডারি পেয়েছেন। বাংলাদেশ পেল তৃতীয় উইকেট। নতুন ব্যাটসম্যান হেনরি নিকোলস।

কনওয়ের সেঞ্চুরি

বিশ্বকাপে সেমিফাইনাল ম্যাচে ইনজুরিতে পড়ায় ফাইনাল খেলতে পারেননি ডেভন কনওয়ে। সেই আক্ষেপ এখনও বয়ে বেড়াচ্ছেন তিনি। ইনজুরির পর আজই প্রথম আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফিরলেন। নিজের ফেরা সেঞ্চুরিতে রাঙালেন প্রতিশ্রুতিশীল এই ক্রিকেটার। ক্যারিয়ারের দ্বিতীয় টেস্ট সেঞ্চুরি এটি। এর আগে লর্ডসে সেঞ্চুরি হাঁকিয়েছিলেন। সেটিকে ডাবলে রূপ দিয়েছিলেন বাঁহাতি ব্যাটসম্যান।

 

জমাট ব্যাটিংয়ে সেঞ্চুরি পেয়েছেন কনওয়ে। ১৮৬ বলে তিন অঙ্কের ম্যাজিকাল ফিগারে পৌঁছান। ১৪ চার ও ১ ছক্কায় সাজান ইনিংসটি। বাজে বল শাসন করেছেন সিদ্ধহস্তে। ভালো বল দেখেশুনে খেলে বাড়িয়েছেন রান। ইনিংসের শুরুতেই মাঠে নামতে হয় তাকে। টম লাথম আউট হন চতুর্থ ওভারে।

ওই সময়ে বাংলাদেশের পেসারদের তোপে সংগ্রাম করতে হয়েছিল। কিন্তু থিতু হওয়ার পর তাকে আর পেছনে ফিরে তাকাতে হয়নি। ধ্রুপদী ব্যাটিংয়ে পেয়ে যান বছরের প্রথম সেঞ্চুরি।

দ্বিতীয় সেশনে নিউ জিল্যান্ডের দাপট

দিনের প্রথম সেশনে দুই দলের লড়াই সমানে সমান হলেও দ্বিতীয় সেশনে দাপট দেখাল নিউ জিল্যান্ড। ২৭ ওভারে ৮৭ রান তুলেছে কিউইরা। হারিয়েছে ১ উইকেট। রান রেট ছিল ৩ করে। বাংলাদেশের বোলারদের ওপর চড়াও হয়ে খেলে দ্রুত রান তুলেন ডেভন কনওয়ে। সেঞ্চুরি থেকে মাত্র ১২ রান দূরে থেকে গিয়েছেন চা-বিরতিতে। তার সঙ্গে আছেন রস টেলর। তার ব্যাট থেকে এসেছে ৪ রান।

দ্বিতীয় সেশনে বাংলাদেশের একমাত্র প্রাপ্তি ইয়ংয়ের উইকেট। নাজমুল ইসলামের থ্রোতে লিটনের স্টাম্পিংয়ে ৫২ করা ইয়ংকে ফেরায় বাংলাদেশ। এর আগে সকালের সেশনে বাংলাদেশ আউট করে টম লাথামকে।

 

বৈশাখী নিউজ/ ইডি