ফের ভিসা বাতিল জকোভিচের

অস্ট্রেলিয়ায় দ্বিতীয়বারের মত বাতিল হলো সার্বিয়ার টেনিস তারকা নোভাক জকোভিচের ভিসা। প্রথমবার আদালতে ভিসা বিতর্কে জিতেছিলেন জকোভিচ। তবে, অস্ট্রেলিয়ার ইমিগ্রেশন মন্ত্রী অ্যালেক্স হকের হস্তক্ষেপে দ্বিতীয় বারের মত ভিসা বাতিল হলো এই তারকার।

ফলে অস্ট্রেলিয়ান ওপেনে জকোভিচের খেলা নিয়ে সংশয় তৈরি হয়েছে। এতে রেকর্ড ২১তম গ্র্যান্ড স্ল্যাম জয়ের স্বপ্নও ধুলিসাৎতের পথে বিশ্বের একনম্বর টেনিস তারকা জকোভিচের।

গত মাসে কোভিডে আক্রান্ত হন জকোভিচ। পরে কোভিড মুক্ত হয়ে কোর্টে খেলতে নামেন তিনি। এরপর অস্ট্রেলিয়ান ওপেনের জন্য চলতি সপ্তাহে সিডনিতে পৌঁছান জকোভিচ।

কিন্তু কোভিডের কারণে বাইরের দেশের নাগরিকদের জন্য কড়া নিয়ম অস্ট্রেলিয়া সরকারের। অস্ট্রেলিয়ার নাগরিক না হলে সে দেশে প্রবেশ করতে কোভিড টিকার সম্পূর্ণ ছাড়পত্র লাগবে। কিন্তু জকোভিচের কাছে কোভিড টিকার ছাড়পত্র ছিলো না বলে দাবি অস্ট্রেলিয়ার ইমিগ্রেশনের।

এতে জকোভিচের ভিসা বাতিল করা হয়। পরে তাকে হোটেলে আটক রাখা হয়। এরপর টেনিস তারকার আইনজীবী আদালতে পাল্টা চ্যালেঞ্জ জানিয়ে আবেদন করেন। এরপর ওই মামলায় জয় পেয়েছিলেন জকোভিচ।

ফেডেরাল কোর্টের বিচারপতিরা রায় দেন, হোটেলে আটকে রাখা যাবে না জোকারকে। এরপর অস্ট্রেলিয়ান ওপেনের প্রস্তুতিতে কোর্টেও নামেন সাবিয়ান তারকা। অস্ট্রেলিয়ান ওপেনের ড্রয়েও রাখা হয় শীর্ষ বাছাই জকোভিচকে।

কিন্তু পরবর্তীতে বাঁধ সাধেন অস্ট্রেলিয়ান ইমিগ্রেশন মন্ত্রী অ্যালেক্স হক। তার দফতর থেকে জানানো হয়, অস্ট্রেলিয়ান ওপেনের ড্র স্থগিত রাখতে। কারণ পুনরায় জকোভিচের ভিসা বাতিল করার চেষ্টা করছিলো হকের দফতর। অবশেষে তাই-ই হলো, আরও একবার বাতিল করা হলো জকোভিচের ভিসা।

পুনরায় দ্রুত আদালতে চ্যালেঞ্জ না করলে এবং না জিতলে আসন্ন অস্ট্রেলিয়া ওপেনে দেখা যাবে না বিশ্বের একনম্বর টেনিস তারকা জকোভিচকে।

বৈশাখী নিউজ/ এপি