ব্রেস্তকে হারিয়ে জয়ে ফিরল পিএসজি

লিগ ওয়ানে জয়ে ফিরেছে পিএসজি। টানা দুই ম্যাচে পয়েন্ট হারানোর পর জয় পেয়েছে ফরাসি দলটি। দুই অর্ধের দুই গোলে ব্রেস্তকে সহজেই হারিয়ে শীর্ষস্থান আরও মজবুত করলো মাওরিসিও পচেত্তিনোর দল।

শনিবার রাতে ২-০ গোলের জয় পেয়েছে মরিসিও পচেত্তিনোর দলের। কিলিয়ান এমবাপে দলকে এগিয়ে নেওয়ার পর ব্যবধান বাড়ান টিলো কেরার। লিগে গত দুই রাউন্ডে যথাক্রমে লরিয়ঁ ও লিওঁর বিপক্ষে ১-১ গোলে ড্র করেছিল প্যারিসের দলটি।

লিওনেল মেসি করোনাভাইরাস থেকে সেরে উঠেছেন বটে, কিন্তু তাকে একাদশে রাখেননি কোচ মরিসিও পচেত্তিনো। ফলে আরও একটা ম্যাচে তাকে ছাড়াই খেলেছে পিএসজি।

তবে শুরুর কয়েক মিনিটে পিএসজি শিবিরকে কাঁপিয়ে দেয় ব্রেস্ত। দলটির ফরোয়ার্ড কার্দোনার দুটি প্রচেষ্টা রুখে দেন ইতালিয়ান গোলরক্ষক জানলুইজি দোন্নারুম্মা।

এরপর অবশ্য পিএসজি নিজেদের গুছিয়ে নেয়, যার ফল আসে ৩২তম মিনিটে। জর্জিনিও ওয়াইনাল্ডামের পাস থেকে দারুণ এক গোল করে বসেন এমবাপে। জর্জিনিয়োর পাস ডি-বক্সে পেয়ে ডান পায়ের জোরাল শট প্রতিপক্ষ ডিফেন্ডারের দুই পায়ের ফাঁক দিয়ে জালে জড়ান ফরাসি তারকা। এই এক গোলের লিড নিয়েই প্রথমার্ধ শেষ করে পিএসজি।

দ্বিতীয়ার্ধের তৃতীয় মিনিটে দ্বিগুণ হতে পারত ব্যবধান। কিন্তু আনহেল ডি মারিয়ার পাসে মার্কো ভেরাত্তির ডান পায়ের শট পোস্টে লাগে। তবে ৫৩তম মিনিটে ব্যবধান দ্বিগুণ করে পিএসজি। বাঁ দিকের বাইলাইনের কাছ থেকে নুনো মেন্দেসের কাটব্যাক ছয় গজ বক্সের মুখে পেয়ে প্রথম স্পর্শে ঠিকানা খুঁজে নেন কেরার। তাতে পিএসজি পেয়ে যায় তাদের দ্বিতীয় গোলের দেখা।

গত সপ্তাহে লিওঁর বিপক্ষে এই জার্মানের গোলেই হার এড়িয়েছিল পিএসজি।

৭৪তম মিনিটে ডি মারিয়াকে তুলে নিয়ে সের্হিও রামোসকে নামান পিএসজি কোচ। দুই মিনিট পর ব্যবধান আরও বাড়তে পারত। মাউরো ইকার্দির প্রচেষ্টা ঝাঁপিয়ে ব্যর্থ করে দেন গোলরক্ষক।

শেষ দিকে ভালো একটি ভাল সুযোগ পেয়েও গোলরক্ষক বরাবর শট নেন এমবাপে। তাতেই পিএসজি ম্যাচটা শেষ করে সেই ২-০ ব্যবধান নিয়েই।

এই জয়ে ২১ ম্যাচ থেকে ৫০ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে আছে পিএসজি। সমান ম্যাচে ৩৯ পয়েন্ট নিয়ে দুইয়ে নিস। দুই ম্যাচ কম খেলে ৩৬ পয়েন্ট নিয়ে তিনে আছে মার্সেই।

বৈশাখী নিউজ/ জেপা