‘মারিউপুলে ইউক্রেনীয় বাহিনী শেষ দিনের মুখোমুখি হচ্ছে’

মারিউপুলের শেষ শক্তিশালী ঘাঁটিতে যুদ্ধরত ইউক্রেনীয় মেরিনদের এক কমান্ডার বলেছেন, তার বাহিনী ‘যদি কয়েক ঘন্টা না হয় হয়তো শেষ দিনের মুখোমুখি হচ্ছে।’

তিনি বুধবার ভোরে এক ফেসবুক পোস্টে তাদেরকে এখান থেকে সরিয়ে নেয়ার আবেদন জানান।

৩৬ তম মেরিন ব্রিগেডের সার্হেই ভোলেইনা বলেন, ‘শত্রুপক্ষের সংখ্যার তুলনায় আমাদের সংখ্যা কমে ১০ জন থেকে ১ জনে দাঁড়িয়েছে।’ আমাদের সেনারা অবরুদ্ধ আজভস্টাল কারখানার বিশাল ভূগর্ভস্ত টানেলে আশ্রয় নিয়েছে। রাশিয়ান সেনারা ইউক্রেনের যোদ্ধাদের সেখানে অবরুদ্ধ করে রেখেছে।

ভোলেইনা তার ভিডিওতে বলেছেন, ‘আমরা সমস্ত বিশ্ব নেতাদের কাছে আমাদের সাহায্য করার জন্য আাবেদন জানাচ্ছি।’

‘আমাদের উদ্ধারের ব্যবস্থা নিতে এবং তৃতীয় কোন রাষ্ট্রের অঞ্চলে নিয়ে যাওয়ার অনুরোধ জানাচ্ছি।’
মারিউপুলে যুদ্ধের পরিস্থিতি জানতে না পারা এবং যোগাযোগের অভাবে উভয় পক্ষের দেয়া তথ্য যাচাই করা সম্ভব নয়।

রাশিয়ান বাহিনী ধীরে ধীরে শহরে প্রবেশ করছে বলে মনে করা হচ্ছে, কিছু ইউক্রেনীয় কর্মকর্তা বলেছেন, মঙ্গলবার আজভস্টাল প্লান্টের কাছে একটি হাসপাতালে হামলা করা হয়েছে।

ভোলেইনা বলেছে, ‘রাশিয়ান বাহিনী এয়ার ও আর্টিলারি এবং ট্যাঙ্কের সাপোর্ট নিয়ে সুসজ্জিত স্থলবাহিনী হিসেবে অবস্থান নিয়েছে।’

আমরা কেবল আজভস্টাল প্লান্ট রক্ষা করে অবস্থান নিয়ে আছি, যেখানে সামরিক কর্মী ছাড়াও বেসামরিক ব্যক্তিরা আছেন যারা এই যুদ্ধের শিকার কয়েছেন।

রাশিয়া মঙ্গলবার মারিউপুলে ইউক্রেনের বাহিনীকে অবিলম্বে অস্ত্র সমর্পণের নতুন আলটিমেটাম দিয়েছে।

রাশিয়ার প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় বলেছে, ইউক্রেনীয় বাহিনীর এখনো যারা আজভস্টাল প্লান্টের ভেতরে রয়েছে তারা ‘ভয়ানক পরিস্থিতির’ মধ্যে রয়েছে।

বৈশাখী নিউজ/ ইডি