আসর থেকে বাদ পড়লো চেন্নাই

চেন্নাই সুপার কিংসকে মাত্র ৯৭ রানে অল-আউট করে দিয়ে দাপুটে জয় পেয়েছে মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স। চলতি আসরে এটি মুম্বাইয়ের তৃতীয় জয়। অপরদিকে, আসর থেকে বাদ পড়ে গেল চেন্নাই।

ওয়াংখেড়ে স্টেডিয়ামে টস জিতে চেন্নাইকে আগে ব্যাট করার জন্য আমন্ত্রণ জানায় মুম্বাই।

প্রথম ওভারেই দুইটি উইকেট শিকার করেন ড্যানিয়েল স্যামস। রানের খাতা খোলার আগেই প্যাভিলিয়নে ফিরে যান ডেভন কনওয়ে ও মঈন আলি। পরের ওভারেই রবিন উথাপ্পাকে শিকার করেন জাসপ্রীত বুমরাহ। পাওয়ারপ্লেতেই আরেক ওপেনার রুতুরাজ গায়কোয়াড়কেও শিকার করে চেন্নাইকে মহাবিপদে ফেলেন স্যামস।

গায়কোয়াড় ফেরার পরের ওভারেই আম্বাতি রাইডুকে সাজঘরের পথ দেখান রাইলি মেরেডিথ। নিজের পরের ওভারেই শিবম দুবেকেও শিকার করেন এই বোলার। ৩৯ রানেই ৬ উইকেট হারিয়ে ফেলে যেন অথৈ সাগরে হাবুডুবু খায় চেন্নাই। সপ্তম উইকেটে ডোয়াইন ব্রাভোকে নিয়ে ইনিংস গড়ার চেষ্টা করেন মহেন্দ্র সিং ধোনি। তবে সঙ্গ দিতে ব্যর্থ হন ব্রাভো। ১৫ বলে ১২ রান করে সাজঘরে ফেরেন তিনিও।

৭৮ রানে ৭ উইকেট হারানোর পর বাকিটা পথ একাই দলকে টেনে নিয়ে যান ধোনি। তবে তিন অংক স্পর্শ করার আগেই অল-আউট হয় চেন্নাই। দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ৩৩ বলে ৩৬ রানের অপরাজিত ইনিংস খেলেন ধোনি চেন্নাই গুঁটিয়ে যায় ৯৭ রানে। স্যামস তিনটি এবং মেরেডিথ ও কুমার কার্তিকেয়া নেন দুইটি উইকেট।

জবাব দিতে নেমে মুম্বাইও প্রথম ওভারেই মুকেশ চৌধুরির বলে ঈশান কিষাণকে হারায়। দলীয় ৩০ রানের মাথায় বিদায় নেন অধিনায়ক রোহিত শর্মাও। রোহিত করেন ১৪ বলে ১৮ রান। রোহিত ফেরার পরের ওভারেই স্যামস ও ট্রিস্টান স্ট্যাবসকে শিকার করে একই ওভারে জোড়া উইকেট নেন মুকেশ। ৩৩ রানে ৪ উইকেট হারায় মুম্বাই।

তবে মুম্বাইকে জয়ের পথে ধরে রাখেন তিলক বার্মা ও ঋত্বিক শোকিন। তাদের ৪৮ রানের জুটি ভাঙেন মঈন। উইকেট হারানোর পরও টিম ডেভিডের ক্যামিওতে জয় পেতে বেশি অপেক্ষা করতে হয়নি মুম্বাইকে। ৩১ বল হাতে রেখেই ৫ উইকেট জয় পেয়েছে মুম্বাই। তিলক ৩২ বলে ৩৪ রান ও ডেভিড ৭ বলে ১৬ রানে অপরাজিত থাকেন।

বৈশাখী নিউজ/ জেপা