সন্তান না নেওয়ায় ছেলে-বউমার বিরুদ্ধে পাঁচ কোটি টাকা মামলা

ছেলের বিরুদ্ধে আদালতে মামলা করেছেন ভারতের এক দম্পতি। এক বছরের মধ্যে নাতি-নাতনির জন্ম দিতে না পারলে সাড়ে ছয় লাখ মার্কিন ডলার বা পাঁচ কোটি ভারতীয় টাকা ক্ষতিপূরণ চেয়েছেন তারা। খবর টাইমস অব ইন্ডিয়া।

সঞ্জীব এবং সাধনা প্রসাদ জানিয়েছেন, পাইলট ছেলেকে বড় করতে এবং পড়াশোনা করাতে নিজেদের জমানো অর্থ খরচ করে প্রায় নিঃস্ব হয়েছেন তারা। ছেলের জাঁকজমকপূর্ণ বিয়ের অনুষ্ঠানেও অনেক টাকা খরচ হয়েছে। এখন তারা এর প্রতিদান চান।

গত সপ্তাহে হরিদ্বারের এক আদালতে দায়ের করা আবেদনে তারা জানান, ‘‘আমার ছেলে গত ছয় বছর ধরে বিবাহিত হলেও এখনও সন্তান গ্রহণের পরিকল্পনা করছে না। আমাদের যদি অন্তত একটা নাতি বা নাতনি থাকতো, তাহলেও আমাদের যন্ত্রণা অনেকটাই লাঘব হতো।’’

টাইমস অব ইন্ডিয়া জানিয়েছে, ক্ষতিপূরণ হিসাবে তারা পাঁচ কোটি ভারতীয় টাকা দাবি করেছেন। এর মধ্যে রয়েছে পাঁচ তারকা হোটেলে বিয়ের অনুষ্ঠান আয়োজন, ৬০ লাখ টাকা দামের গাড়ি উপহার এবং বিদেশে মধুচন্দ্রিমার খরচও রয়েছে।

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে ছেলেকে পাইলট হিসাবে প্রশিক্ষণ দেয়ার খরচ হিসাবে ৫০ লাখ টাকা ক্ষতিপূরণ চাওয়া হয়েছে। কিন্তু ছেলে দেশে ফেরত এসে আর কোনো চাকরিতে যোগ দেননি।

আদালতে দায়ের করা পিটিশনে তারা আরো বলেন, ‘‘আমাদের বাড়ি নির্মাণের জন্য ঋণ নিতে হয়েছে। এখন আমরা অর্থনৈতিক দুরবস্থার মধ্য দিয়ে যাচ্ছি। আমাদের একা থাকতে হয় দেখে আমরা মানসিকভাবেও বিপর্যস্ত৷’’

পিটিশনটি শুনানির জন্য ১৭ মে আদালতে উঠবে বলে জানিয়েছেন দম্পতির আইনজীবী অরভিন্দ কুমার।

ভারতে একান্নবর্তী পরিবারে কয়েক প্রজন্মের সদস্যদের একসঙ্গে বাস করার ঐতিহ্য রয়েছে। কিন্তু সে পরিস্থিতি দিন দিন বদলাচ্ছে। তরুণ প্রজন্মের অনেকেই পরিবার থেকে আলাদা বাস করার বিকল্প বেছে নিচ্ছেন। সন্তান জন্ম দেয়ার চেয়ে ক্যারিয়ারের দিকে বেশি ঝুঁকছেন তরুণেরা।

বৈশাখী নিউজ/ জেপা