কে হচ্ছেন ভারতের নতুন রাষ্ট্রপতি, জানা যাবে আজ

আজ বৃহস্পতিবার (২১ জুলাই) রাষ্ট্রপতি নির্বাচনের ফলাফল। এনডিএ-র দ্রৌপদী মুর্মু ও বিরোধী শিবিরের যশবন্ত সিন্‌হার মধ্যে লড়াইয়ের ফল কী হতে চলেছে, তা অনেকাংশেই স্পষ্ট। প্রায় অনায়াসেই জিততে চলেছেন দ্রৌপদী। ফলে তিনি হবেন স্বাধীন ভারতের প্রথম রাষ্ট্রপতি যিনি জনজাতি সমাজের প্রতিনিধি। ফল কী হবে এটা আন্দাজ করেই সেজে উঠছে দ্রৌপদীর বাংলো।

দিল্লির নতুন বঙ্গ ভবনের ঠিক পাশে ওই বাংলোই হয়ে উঠেছিল রাষ্ট্রপতি পদ প্রার্থী হওয়ার পর থেকে দ্রৌপদীর ঠিকানা।

ফলাফলের আগের দিনই বাড়ির দরজায় দিল্লি পুলিশের কড়া পাহারা। বর্তমানে জেড ক্যাটেগরির সুরক্ষা পাওয়া দ্রৌপদীর বাড়ির সামনে দাঁড়িয়ে রয়েছে জ্যামার লাগানো গাড়ি। বসেছে মেটাল ডিটেক্টর, মালপত্র স্ক্যান করার মেশিনযুক্ত গাড়ি। অপরিচিত কারও প্রবেশাধিকারের প্রশ্ন নেই।

জনজাতি সমাজের প্রথম রাষ্ট্রপতিকে স্বাগত প্রস্তুতি নিচ্ছেন বিজেপি নেতৃত্বও। সূত্রের মতে, দলে যে সব আদিবাসী সাংসদ রয়েছেন, তাঁদের পক্ষ থেকে বিশেষ ভাবে সংবর্ধনা দেওয়ার কথা ভাবা হয়েছে। দ্রৌপদীকে সামনে রেখে আসন্ন ভোটে প্রায় দশ কোটি জনজাতি মানুষের সমর্থন জেতার কোনো সুযোগ ছাড়তে রাজি নয় দল।

পাশাপাশি, শুরু হয়ে গিয়েছে বিদায়ের প্রস্তুতিও। রাষ্ট্রপতি পদ থেকে অবসরের পরে দিল্লিতেই থাকার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন রামনাথ কোবিন্দ। লুটিয়েন দিল্লিতে ১০, জনপথের বাসিন্দা সনিয়া গান্ধীর প্রতিবেশী হতে চলেছেন কোবিন্দ। তিনি ১২ নম্বর জনপথের যে বাংলোয় যাচ্ছেন, তা ছিল এক সময়ে বিহারের দলিত নেতা রামবিলাস পাসোয়ানের।

প্রায় তিন দশকের কাছাকাছি, সাংসদ জীবন থেকে মৃত্যু পর্যন্ত ওই বাংলোয় ছিলেন রামবিলাস। বাংলো সাজিয়েছিলেন মনের মতো করে। এখন ওই বাংলো কোবিন্দের নামে বরাদ্দ হওয়ায় ফের পাল্টাচ্ছে ভিতরের নকশা।

বৈশাখী নিউজ/ ইডি