ওমিক্রনে আক্রান্ত মুর্শিদাবাদের ৭ বছরের শিশু

ভারতে মাত্র সাত বছর বয়সী শিশুর শরীরে মিলেছে ওমিক্রন ভ্যারিয়েন্ট। স্বাস্থ্য দপ্তরের খবর, সম্ভবত মধ্যপ্রাচ্যের একটি দেশ থেকে প্রথমে শিশুটি ফেরে হায়দ্রাবাদে। সেখান থেকে পশ্চিমবঙ্গের মুর্শিদাবাদে আসে শিশুটি।

শিশুটির বাড়ি ভারতের মুর্শিদাবাদের ফারাক্কায়। তবে, সম্প্রতি হায়দ্রাবাদ থেকে ফিরেছে শিশুটি। স্বাস্থ্য দপ্তরের খবর, হায়দ্রাবাদ বিমানবন্দরে তার আরটিপিসিআর টেস্ট পজিটিভ মিলেছিল। তা সত্ত্বেও ওই শিশু কীভাবে মুর্শিদাবাদ পৌঁছাল, তা নিয়ে প্রশ্ন রয়েছে।

তবে, শিশুটির বিষয়ে নিশ্চিত হওয়া মাত্রই সক্রিয় হয়েছে স্বাস্থ্য দপ্তর। ওই শিশুকে বাড়িতেই কোয়ারেন্টিনে রাখা হয়েছে। স্বাভাবিক কারণেই এই ঘটনার পর নড়েচড়ে বসেছে স্বাস্থ্য দপ্তর।

প্রসঙ্গত,ডেল্টার পরে ওমিক্রন ভ্যারিয়েন্ট নিয়ে উদ্বেগ বেড়েছে বিশ্বের একাধিক দেশে। ভারতও তার ব্যতিক্রম নয়। গতকাল দিল্লিতে আরও ৪ জনের করোনা আক্রান্তের নমুনায় ওমিক্রন ভ্যারিয়েন্টের খোঁজ মিলেছে। এই নিয়ে দিল্লিতে ওমিক্রন আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৬।

মহারাষ্ট্রে নতুন করে আক্রান্ত হয়েছে আরও ৮ জন। ফলে দেশটিতে মোট ওমিক্রন আক্রান্তের সংখ্য়া বেড়ে ৫৭ জন হয়েছে । এবার সেই তালিকায় নাম লেখাল পশ্চিমবঙ্গও।

এরই মধ্যে পশ্চিমবঙ্গে করোনা সংক্রমণও কিছুটা বৃদ্ধি পেয়েছে। রাজ্যের স্বাস্থ্য দপ্তরের প্রকাশিত রিপোর্ট অনুযায়ী, গত ২৪ ঘণ্টায় রাজ্যে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে ৫৫২ জন।

এ নিয়ে রাজ্যে মোট আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ১৬ লাখ ২৪ হাজার ১৬১। এরই মধ্যে ওমিক্রনের থাবা নতুন করে দুশ্চিন্তায় ফেলেছে বিশেষজ্ঞদের। সুত্র: আনন্দবাজার

বৈশাখী নিউজ/ জেপা