ভ্রমণে ব্যয় ৬০০ কোটি টাকা মাত্র!

কয়েকশ কোটি টাকা খরচ করে ১২ দিনের মহাকাশ ভ্রমণ শেষে পৃথিবীতে ফিরেছেন জাপানি ধনকুবের ইউসাকু মায়েযাভা ।

পর্যটক হিসেবে বিভিন্ন স্থান ঘুরে বেরানোর সখ অনেকেরই। এর জন্য খরচের খাতাটাও খোলা রাখতে হয়। তবে ভ্রমণের জন্য শত কোটি টাকা খরচের ইতিহাস হয়তো খুব একটা নেই। জাপানের বিলিয়নিয়ার ইউসাকু মায়েযাভা কিন্তু সেটিই করেছেন। তবে তার ভ্রমণের জায়গা পৃথিবীর কোনো দর্শনীয় স্থান নয়। তিনি ঘুরে বেড়িয়েছেন মহাকাশ।

আন্তর্জাতিক মহাকাশ স্টেশনে ১২ দিন কাটানোর পর সোমবার পৃথিবীতে ফিরে এসেছেন তিনি। আর এ ১২ দিনের ভ্রমণের জন্য তিনি খরচ করেছেন আনুমানিক ৬১৩ কোটি টাকা।

নিজের ব্যক্তিগত সহকারি ও ফিল্ম প্রডিউসার ইয়োযো হিরানো এবং রাশিয়ান মহাকাশচারী আলেকজান্ডার মিসুরকিন-কে নিয়ে কাজাখস্তান থেকে মহাকাশের উদ্দেশ্যে যাত্রা করেন তিনি। ১২ দিনের সফর শেষে আবার কাজাখস্তানেই অবতরণ করেন।

১২ দিনের এ সফরে কী কী করছেন সে বিষয়ে ইতিমধ্যে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে কিছু ছবি এবং ভিডিও আপলোড করেছেন তিনি। এসব পোস্টে তিনি কীভাবে মহাকাশের ভরশূন্য অবস্থায় চা বানাতে হয় তা দেখাচ্ছিলেন। তাছাড়া মহাকাশ স্টেশনে অতিরিক্ত অন্তর্বাসের ঘাটতির বিষয়টিও আলোচনা করতে দেখা গেছে তাকে।

সব মিলিয়ে প্রায় কয়েকশ কোটি টাকার এ ভ্রমণটি তিনি বেশ উপভোগ করেছেন বলা যায়।

স্পেস স্টেশন থেকে এক লাইভ ইন্টারভিউতে ইউসাকু মায়েযাভা বলেন, ‘‘এমন চমৎকার অভিজ্ঞতা পাওয়া যে কতোটা মূল্যবান তা আপনি শুধু মাহাকাশে আসলেই বুঝতে পারবেন।”

এদিকে ভ্রমণটিতে কী পরিমাণ টাকা খরচ হয়েছে এমন প্রশ্নের অবশ্য সরাসরি উত্তর দেননি ইউসাকু মায়েযাভা। তবে বিভিন্ন গণমাধ্যমে প্রকাশিত খবর অনুযায়ী, ভ্রমণে মোট খরচ হয়েছে প্রায় ৬১৩ কোটি টাকা। টাকার অংকটি ঠিক কতো তা প্রকাশ করতে না চাইলেও ইউসাকু মায়েযাভা জানান, অংকটি অনেকটি এরকমই।

প্রথমবারের ভ্রমণ শেষে এবার ২০২৩ সালে আবারো মহাকাশে যাওয়ার পরিকল্পনা তার। এবার লক্ষ্য চাঁদে যাওয়া। নিজের সাথে আরো আটজনকে নিয়ে যাওয়ার ঘোষণাও দিয়েছেন এই ব্যবসায়ী।

উল্লেখ্য, ফোর্বস ম্যাগাজিনের তথ্য অনুযায়ী, ইউসাকু মায়েযাভা ব্যক্তিগত সম্পত্তির পরিমাণ প্রায় সাড়ে ষোল হাজার কোটি টাকা। সূত্র: ডয়েচে ভেলে।

বৈশাখী নিউজ/ জেপা