ডিসি সম্মেলন শুরু ১৮ থেকে ২০ জানুয়ারি

করোনা মহামারির কারণে দুই বছর পর অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে জেলা প্রশাসক (ডিসি) সম্মেলন। আগামী ১৮ থেকে ২০ জানুয়ারি ডিসি সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে।

বৃহস্পতিবার মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ থেকে সম্মেলনের কর্মসূচি প্রকাশ করা হয়েছে। এ সম্মেলনে ২১টি কার্য অধিবেশনসহ মোট ২৫টি অধিবেশন থাকবে। এরমধ্যে প্রথম দিন সাতটি, দ্বিতীয় দিন আটটি ও তৃতীয় দিন ১০টি অধিবেশন থাকবে।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গণভবন থেকে ভার্চুয়ালি যুক্ত হয়ে সম্মেলন উদ্বোধন করবেন। ডিসি ও বিভাগীয় কমিশনারসহ অন্য কর্মকর্তারা রাজধানীর ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তন থেকে অংশগ্রহণ করবেন।
এদিন সন্ধ্যা ৬টায় ডিসিদের উদ্দেশে দিক-নির্দেশনামূলক বক্তব্য (ভার্চুয়ালি) দেবেন রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ। সম্মেলনের দ্বিতীয় দিন জাতীয় সংসদের স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী ও প্রধান বিচারপতি হাসান ফয়েজ সিদ্দিকী শুভেচ্ছা বক্তব্য দেবেন।

সরকারের নীতিনির্ধারক ও জেলা প্রশাসকদের মধ্যে সরাসরি মতবিনিময় ও প্রয়োজনীয় দিক-নির্দেশনার মাধ্যম ডিসি সম্মেলন। প্রতিবছর জুলাইয়ে এ আয়োজন করা হয়। কিন্তু করোনা মহামারির কারণে দুই বছর হয়নি।

সর্বশেষ ২০১৯ সালের ১৪-১৮ জুলাই ডিসি সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। চলতি বছরের ৫ থেকে ৭ জানুয়ারি ও পরে ১১-১৩ জানুয়ারি হওয়ার কথা থাকলেও তা স্থগিত করা হয়েছিল।

প্রধানমন্ত্রী তার কার্যালয়ে ডিসি সম্মেলন উদ্বোধন করে থাকেন। ২০১৯ সালে ডিসি সম্মেলনে প্রথমবারের মতো প্রধান বিচারপতি, তিন বাহিনী প্রধান, জাতীয় সংসদের স্পিকারের সঙ্গে ডিসি ও বিভাগীয় কমিশনাররা বৈঠক করেন।

সম্মেলনে বিভিন্ন মন্ত্রণালয় ও বিভাগের সঙ্গে ডিসিদের কার্য অধিবেশন, উদ্বোধনী অনুষ্ঠান, প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে মুক্ত আলোচনা, রাষ্ট্রপতির সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ, স্পিকারের সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ, প্রধান বিচারপতির সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ ও একটি সমাপনী অনুষ্ঠান পর্ব থাকে।

কার্য অধিবেশনগুলোতে মন্ত্রণালয় ও বিভাগের প্রতিনিধি হিসেবে মন্ত্রী, উপদেষ্টা, প্রতিমন্ত্রী, উপমন্ত্রী, সিনিয়র সচিব ও সচিবরা উপস্থিত থাকেন। সম্মেলন উপলক্ষে জেলা প্রশাসক ও বিভাগীয় কমিশনাররা লিখিতভাবে মাঠ প্রশাসনের সমস্যা ও সম্ভাবনা নিয়ে প্রস্তাব দিয়ে থাকেন।

বৈশাখী নিউজ/ জেপা