রেকর্ড গড়ার পর ভেঙে গেল বিটিএস

বিশ্বজুড়ে জনপ্রিয় ব্যান্ড বিটিএস। সারাবিশ্বে অসংখ্য ভক্তদের দুঃসংবাদ দিলেন ব্যান্ডের সদস্যরা। জানা গেছে, হঠাৎ করেই দলটি ভেঙে দেয়ার খবর। এই খবরে বিটিএস ভক্তরা চোখ ও নাকের জল এক করছেন। দুদিন আগেও নবম বছরের সেলিব্রেশন ছিল চোখ ধাঁধানো। আর ১৪ জুন সব ওলোট পালোট হয়ে গেল।

১৪ জুন বিটিএসের সদস্যদের ডিনারের সময় দলটিকে ভেঙে দেওয়ার বার্তা দেন ব্যান্ডের অন্যতম সদস্য আরএম।

এ সময় তিনি বলেন, ‘আমি সব সময়ই বিটিএসকে অন্য ব্যান্ডদের চেয়ে আলাদা ভেবেছি। কিন্তু কে-পপ ও পুরো ‘আইডল’ পদ্ধতির সমস্যা হলো এটা আপনাকে পরিণত হওয়ার সুযোগ দেবে না। আপনাকে গান চালিয়ে যেতে হবে এবং কিছু না কিছু করতে হবে।’

১৩ জুন ছিল ব্যান্ডটি প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী। এ উপলক্ষে ১০ জুন মুক্তি পেয়েছে বিটিএসের নতুন অ্যালবাম। মুক্তির পর আলোচনার শীর্ষে চলে এসেছে এই অ্যালবামটি। নতুন গান প্রকাশের পর মাত্র তিন দিনে ইউটিউবে গানটির ভিউ ৭৫ মিলিয়ন ছাড়িয়ে গেছে। আর ইতিমধ্যেই অ্যালবামটি তিন মিলিয়নেরও বেশি কপি বিক্রি হয়েছে, যা রীতিমত রেকর্ড গড়েছে।

তবে, নতুন অ্যালবামের এই সাফল্যের উদযাপনের মধ্যেই ভক্তদের মন খারাপ করা খবর দিল ব্যান্ডটি। ব্যান্ডের অফিশিয়াল ইউটিউব চ্যানেল এক ভিডিও বার্তায় আরেক সদস্য সুগাও বলেন, ‘আমরা এখন আলাদা হয়ে যাব।’

মূলত ব্যান্ডের সদস্যের একক ক্যারিয়ার এগিয়ে নিতেই এ সিদ্ধান্ত বলে জানানো হয়। বিটিএস-এর ভক্তরা নিজেদের ‘আর্মি’ নামে পরিচয় দেন। এত দিন ধরে সমর্থন জানানোর জন্য ভক্তদের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়ে জিমিন আরও বলেন, ‘এখন আমাদের নিজেদের আত্মপরিচয় খুঁজতে হবে, যা ক্লান্তিকর ও দীর্ঘ এক প্রক্রিয়া।’

তাদের ফ্যান ফলোয়ার বা মিউজিকের সঙ্গে কারোরই তুলনা হয় না। বিটিএসকে স্বীকৃতির বিচারে এশিয়ার সেরা বললেও বাড়িয়ে বলা হয় না। গ্র্যামি থেকে বিলবোর্ড অ্যাওয়ার্ডস, জাতিসংঘ সদর দপ্তর থেকে হোয়াইট হাউস সবখানেই তাদের জয়জয়কার।

বৈশাখী নিউজ/ বিসি