শ্রীলংকায় ফের বিক্ষোভ

শ্রীলংকার প্রেসিডেন্ট গোতাবায়া রাজাপক্ষের পদত্যাগের দাবিতে ফের দেশটিতে শুরু হয়েছে বিক্ষোভ। বিক্ষোভের মুখে সংবিধান সংশোধনের অনুমতি দিয়েছে দেশটির মন্ত্রীসভা। নতুন এই সংশোধনের মাধ্যমে প্রেসিডেন্টের ক্ষমতা কমানো হবে।

মঙ্গলবার মন্ত্রীসভার বৈঠকে এই সিদ্ধান্ত হয়।

কাতার ভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল-জাজিরা’র প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, দেশটির প্রেসিডেন্ট গোতাবায়া ও নতুন প্রধানমন্ত্রী রনিল বিক্রমাসিংহের পদত্যাগের দাবিতে আবারও বিক্ষোভ শুরু হয়েছে।

সোমবার দেশটির বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের হাজারও শিক্ষার্থী রাজধানী কলম্বোয় বিক্ষোভ করেন। তাদের দাবি, দেশটির চলমান অর্থনৈতিক সংকট মোকাবিলায় ব্যর্থ হয়েছেন প্রেসিডেন্ট ও প্রধানমন্ত্রী।

বিক্ষোভে অংশ নেওয়া শিক্ষার্থীরা বলেছেন, শ্রীলংকার অর্থনৈতিক সংকটের জন্য দায়ী প্রেসিডেন্ট গোতাবায়া। সম্প্রতি প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব নেওয়া রনিলের বিরুদ্ধে শিক্ষার্থীদের অভিযোগ, তিনি দেশের চলমান সংকট নিরসনের প্রতিশ্রুতি দিয়ে ক্ষমতায় এলেও প্রতিশ্রুতি রক্ষা করেননি।

এদিকে সংবিধানের ২১তম সংশোধনী প্রস্তাবে বলা হয়েছে, সংবিধান সংশোধনের মাধ্যমে প্রেসিডেন্টের একচ্ছত্র আধিপত্য কমে কিছু ক্ষমতা পার্লামেন্টের হাতে ফিরবে এবং গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত গ্রহণের ক্ষেত্রে সরকারের কমিশনগুলো স্বাধীনতা ভোগ করবে।

শ্রীলংকার পর্যটনমন্ত্রী হারিন ফার্নান্দো এক টুইট বার্তায় বলেছেন, ২১তম সংশোধনী মন্ত্রীসভায় উত্থাপিত এবং পাস করা হয়েছে। প্রস্তাবটি এখন দেশের পার্লামেন্টে পাঠানো হবে। যেখানে এটি পাসের জন্য দুই-তৃতীয়াংশ পার্লামেন্ট সদস্যের ভোট প্রয়োজন।

বৈশাখী নিউজ/ ইডি