ইউক্রেনে রুশ বিমান হামলায় ৫০০ সেনা নিহত

ইউক্রেনের দক্ষিণাঞ্চলীয় বন্দর শহর নিকোলেভের একটি জাহাজ নির্মাণ কারখানায় মঙ্গলবারের বিমান হামলা চালিয়েছে রুশ বাহিনী। এ হামলায় কারখানাটিতে অবস্থান নেয়া ৫০০ ইউক্রেনীয় সেনাদের প্রায় সবাই নিহত হয়েছে।

বুধবার এক বিবৃতিতে এই তথ্য জানিয়েছে রাশিয়ার প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়।

বিবৃতিতে বলা হয়, মঙ্গলবার রুশ বিমান বাহিনীর ‘নির্ভুলভাবে ক্ষেপণাস্ত্র হামলায়’ ইউক্রেনীয় সেনাসদস্যদের নিহতের পাশাপাশি সেনাবাহিনীর অস্ত্র-গোলাবারুদ ও সামরিক যানবাহনও ধ্বংস হয়েছে।

এতে আরও বলা হয়, ইউক্রেনের রুশ বিচ্ছিন্নতাবাদীদের নিয়ন্ত্রণাধীন অঞ্চল লুহানস্কে লড়াইরত ইউক্রেনীয় বাহিনী নিজেদের ৬০ শতাংশ শক্তি ইতোমধ্যে হারিয়েছে।

এদিকে নিকোলেভের ওই জাহাজ নির্মাণ কারখানায় হামলার ঘটনা স্বীকার করেছে ইউক্রেনও। বুধবার দেশটির প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে দেয়া এক বিবৃতিতে বলা হয়, নিকোলেভে একের পর এক ক্রুজ ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালিয়েছে রুশ বাহিনী এবং তার ফলে বন্দরের অবকাঠামো, কারখানা ও বিদ্যুৎ উৎপাদন কেন্দ্রের ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে।

তবে সেনাসদস্যদের নিহতের বিষয়ে কিছু বলা হয়নি ইউক্রেনের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের বিবৃতিতে।

অন্যদিকে মঙ্গলবার নিকোলেভে হামলার ২৪ ঘণ্টার মধ্যে, বুধবার সকালে সীমান্তবর্তী রুশ প্রদেশ রোস্তভে ড্রোন হামলা করেছে ইউক্রেনের সামরিক বাহিনী। তবে ওই হামলায় কেউ হতাহত হয়নি।

বুধবার ১১৮তম দিনে পৌঁছেছে ইউক্রেনে রুশ সেনাদের অভিযান। ইতোমধ্যে দেশটির দুই বন্দর শহর খেরসন ও মারিউপোল, দনেতস্ক প্রদেশের শহর লিয়াম এবং মধ্যাঞ্চলীয় প্রদেশ জাপোরিজ্জিয়ার আংশিক এলাকার পূর্ণ নিয়ন্ত্রণ চলে গেছে রুশ বাহিনীর হাতে। বর্তমানে ইউক্রেনের পূর্বাঞ্চলীয় প্রদেশ লুহানস্কের সেভারদনেতস্ক শহরে ইউক্রেন সেনাদের সঙ্গে তীব্র সংঘাত চলছে রুশ বাহিনীর। সূত্র: আরটি

বৈশাখী নিউজ/ ইডি