পেট্রোল ফুরিয়ে যাওয়ায় শ্রীলঙ্কার পার্লামেন্ট অধিবেশন বাতিল

শ্রীলঙ্কার পার্লামেন্ট জ্বালানি সাশ্রয়ের জন্য সপ্তাহের অবশিষ্ট অধিবেশন বাতিল করেছে। অর্থনৈতিক সংকটের কারণে দেশটিতে ইতোমধ্যে দুষ্প্রাপ্য পেট্রোল সরবরাহ দ্রুত হ্রাস পাচ্ছে।

বৈদেশিক মুদ্রার গুরুতর ঘাটতির কারণে আমদানিকারকরা খাদ্য, তেল এবং ওষুধ ক্রয়ের অর্থ পরিশোধ করতে পারছে না। মুদ্রাস্ফীতি এবং নিয়মিত ব্ল্যাকআউট দক্ষিণ এশিয়ার দেশটির ২২ মিলিয়ন মানুষের জীবন দুর্বিষহ করে তুলেছে।

সংসদীয় কর্মকর্তারা বলেছেন যে, আইনপ্রণেতারা অপ্রয়োজনীয় পেট্রোল ব্যবহার এড়াতে বৃহস্পতিবার ও শুক্রবার অধিবেশন না করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। কয়েকদিন আগে কর্তৃপক্ষ একই কারণে স্কুল এবং কিছু অফিস বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

জ্বালানি মন্ত্রী কাঞ্চনা বিজেসেকেরা বৃহস্পতিবার তেলের যে চালানটি আসার কথা ছিল তা বিলম্বিত হওয়ায় গাড়িচালকদের ভ্রমণ কমানোর অনুরোধ করেছেন।

তিনি কলম্বোতে সাংবাদিকদের বলেন, ‘আজ ও আগামীকাল পাম্পিং স্টেশনগুলোতে সীমিত পরিমাণে পেট্রোল বিতরণ করা হবে।’
গাড়িচালকরা ইতিমধ্যে তাদের গাড়ির ট্যাঙ্কগুলি পরিপূর্ণ করার জন্য কয়েকদিন ধরে লাইনে অপেক্ষা করছে।

প্রধানমন্ত্রী রনিল বিক্রমাসিংহে বুধবার বলেছেন, দেশের অর্থনীতি ‘সম্পূর্ণ পতনের’ পর্যায়ে পৌঁছে গেছে।

বিক্রমাসিংহে আইন প্রণেতাদের বলেছেন, ‘আমরা এখন জ্বালানি, গ্যাস, বিদ্যুৎ এবং খাদ্যের ঘাটতি ছাড়াও আরও গুরুতর পরিস্থিতির সম্মুখীন হচ্ছি।’

শ্রীলঙ্কা গত এপ্রিল মাসে ৫১ বিলিয়ন ডলার বিদেশী ঋণ খেলাপি হয়েছে এবং বেইলআউটের জন্য আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিলের সাথে আলোচনা করছে যাতে কয়েক মাস সময় লাগতে পারে।

খবর এএফপি

বৈশাখী নিউজ/ ফাজা