করোনা নিয়ন্ত্রণের দ্বারপ্রান্তে জার্মানি?

জার্মানির স্বাস্থ্যমন্ত্রী জেনস স্প্যান জানিয়েছেন, দেশটিতে করোনা এখন প্রায় নিয়ন্ত্রণে চলে এসেছে। কারণ করোনাভাইরাসে নতুন আক্রান্তের থেকেও সুস্থ হওয়ার হারটা অনেক বেশি। করোনা নিয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এই তথ্য জানান তিনি।

জেনস স্প্যান বলেন, অন্যান্য দেশের তুলনায় জার্মানি এখন অনেক ভালো করছে। তার দেশে করোনা আক্রান্তের হার অনেক কম বলে জানিয়েছেন তিনি। করোনার সংক্রমণ কমে যাওয়ায় ধীরে ধীরে ওঠতে পারে লকডাউন। এর আগে দেশটির চ্যান্সেলর অ্যাঞ্জেলা ম্যার্কেল জানিয়েছিলেন আগামী সপ্তাহেই তুলে দেওয়া হতে পারে কিছু বিধি-নিষেধ।

জেনস স্প্যান বলেছেন, জার্মানি ১৭ লাখ করোনার টেস্ট করিয়েছে। দেশটির স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের ওয়েবসাইটের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী এক লাখ ৩৩ হাজার আটশ মানুষের শরীরে পাওয়া গেছে করোনা। এর মধ্যে মারা গেছেন তিন হাজার আটশ ৬৮ জন। আর অধিকাংশ রোগীই সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরে গেছেন।

করোনা সঙ্কট নিয়ন্ত্রণে আনতে সাফল্য এলেও সেই সাফল্য অত্যন্ত ভঙ্গুর বলে মনে করেন ম্যার্কেল৷ তাই বর্তমান বিধিনিয়ম আপাতত ৩ মে পর্যন্ত চালু রাখার সিদ্ধান্তের ঘোষণা করেন তিনি৷ ম্যার্কেল বলেন, দুই সপ্তাহ অন্তর পরিস্থিতি পর্যালোচনা করে পরবর্তী সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে৷ মানুষের প্রাণ বাঁচানোর বিষয়টিকেই সরকার অগ্রাধিকার দিচ্ছে৷ তাই সংক্রমণ প্রতিরোধ যতটা সম্ভব নিশ্চিত করে তবেই কোনো ক্ষেত্রে বিধিনিয়ম শিথিল করা হবে৷

এদিকে, পরিস্থিতি ধীরে ধীরে স্বাভাবিক করতে কিছু ক্ষেত্রে নিয়ম শিথিল করছে ফেডারেল ও রাজ্য সরকারগুলো৷ যেমন কিছু ক্ষেত্রে প্রকাশ্যে মাস্ক পরার পরামর্শ দেওয়া হচ্ছে৷ এর আওতায় স্বাস্থ্যবিধি সংক্রান্ত কড়া নিয়ম মেনে আরও কিছু দোকানবাজার খোলা হবে৷ ৪ মে থেকে ধাপে ধাপে স্কুল খোলার পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে৷ তবে প্রথমে শুধু উঁচু ক্লাসের শিক্ষার্থীদের জন্য স্কুল খোলা হবে৷

সূত্র: ভয়েস অব আমেরিকা।

বৈশাখী নিউজএপি