ভারতের রাষ্ট্রপতি ভবনে করোনা, ১২৫ পরিবার আইসোলেশনে

ভারতের রাষ্ট্রপতি ভবনে এবার করোনা আতঙ্ক। সেখানে কর্মরত এক ব্যক্তির স্ত্রীর শরীরে পাওয়া গেছে করোনাভাইরাস। সতর্কতামূলক পদক্ষেপ হিসেবে ভবন চত্বরে থাকা প্রায় ১২৫ পরিবারকে সেলফ আইসোলেশনে থাকার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

জানা গেছে, সদ্য রাষ্ট্রপতি ভবনে কর্মরত এক ব্যক্তির আত্মীয়ের শরীরে করোনাভাইরাস পাওয়া যায়। তারপরই কোনও ঝুঁকি না নিয়ে ওই কর্মী ও তার সংস্পর্শে আসা ১২৫টি বাড়ির আবাসিকদের সেলফ আইসোলেশনে থাকার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

ভারতের রাষ্ট্রপতি ভবন সূত্রে খবর, আন্ডার সেক্রেটারি স্তরের আইএএস আধিকারিকের দপ্তরে কর্মরত এক ব্যক্তির স্ত্রীর শরীরে করোনার জীবাণু পাওয়া গেছে। সদ্য করোনায় আক্রান্ত হয়ে ওই মহিলার মা প্রাণ হারিয়েছেন। তার শেষকৃত্যে গিয়েছিলেন আক্রান্ত মহিলা। তারপর রাষ্ট্রপতি ভবনে স্বামীর কাছে ফিরে আসেন তিনি। তারপরও ওই মহিলার শরীরে করোনার উপসর্গ দেখা দেওয়ায় নমুনা পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয়। রোববার রিপোর্ট আসতে জানা যায়, মহিলা করোনা পজিটিভ। এই খবর প্রকাশ পেতেই রীতিমতো আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে সেখানে। তড়িঘড়ি আক্রান্ত মহিলাকে বিড়লা মন্দির হাসপাতালে পাঠানো হয়।

প্রসঙ্গত, বিশ্বজুড়ে মহামারি আকার ধারণ করা করোনার জেরে মৃত ও আক্রান্তের সংখ্যা ক্রমশ বাড়ছে। এপর্যন্ত ভারতে করোনায় আক্রান্ত প্রায় ১৮ হাজারেরও বেশি মানুষ। প্রাণ হারিয়েছেন প্রায় ৬০০। এর সংক্রমণ ঠেকাতে গত ২৫ মার্চ থেকে লকডাউন চলছে ভারতে। ১৪ এপ্রিল তা উঠে যাওয়ার কথা থাকলেও পরিস্থিতি বিচার করে আগামী ৩ মে পর্যন্ত লকডাউনের সময়সীমা বৃদ্ধি করেছে কেন্দ্রীয় সরকার। তার সুফল পাওয়া গিয়েছে বলে সোমবার জানালেন স্বাস্থ্যমন্ত্রকের অতিরিক্ত সচিব লব আগরওয়াল।

সূত্র: সংবাদ প্রতিদিন

বৈশাখী নিউজইডি