টানা দশমবার শিরোপা জিতল বায়ার্ন

জার্মান বুন্দেসলিগা ও বায়ার্ন মিউনিখ যেনো একে অপরের পরিপূরক। বায়ার্নের চ্যাম্পিয়ন হওয়াই যেন বুন্দেসলিগার নিয়তি। তার আরও একবার প্রমাণ করল জার্মান দলটি। দাপুটে পারফরম্যান্সে টানা দশমবারের মতো লিগ শিরোপা ঘরে তুলল হুলিয়ান নিগেলসম্যানের শিষ্যরা।

শনিবার রাতে বরুশিয়া ডর্টমুন্ডকে ৩-১ গোলে হারিয়ে তিন ম্যাচ হাতে রেখেই চ্যাম্পিয়ন বায়ার্ন।

সের্গে জিনাব্রি বায়ার্নকে এগিয়ে নেওয়ার পর ব্যবধান দ্বিগুণ করেন রবের্ত লেভানদোভস্কি। দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতে এমরে কান ব্যবধান কমানোর পর শেষ দিকে জামাল মুসিয়ালা জালে বল পাঠিয়ে জয় নিশ্চিত করেন।

ঘরের মাঠে বরুশিয়ার বিপক্ষে জিতলেই মিলবে টানা দশম শিরোপা, এমন সমীকরণেই খেলতে নেমেছিল বায়ার্ন। যে লক্ষ্যে ম্যাচের পঞ্চদশ মিনিটে এগিয়ে যায় বায়ার্ন। কর্নার থেকে উড়ে আসা বল ডর্টমুন্ড ডিফেন্ডাররা ক্লিয়ার করতে ব্যর্থ হলে ডি-বক্সের বাইরে পেয়ে যান জিনাব্রি। ঠাণ্ডা মাথায় বল ধরে জোরাল শটে গোলটি করেন জার্মান মিডফিল্ডার।

৩৪তম মিনিটে প্রতিপক্ষের ভুলের সুযোগে স্কোরলাইন ২-০ করে স্বাগতিকরা। নিজেদের সীমানায় ডর্টমুন্ড ডিফেন্ডার ডেন-এক্সল জেগেড বল তুলে দেন প্রতিপক্ষের পায়ে। এরপর সতীর্থের পাস ধরে আগুয়ান গোলরক্ষকের দুই পায়ের মধ্যে দিয়ে ঠিকানা খুঁজে নেন লেভানদোভস্কি।

প্রথমার্ধেই দুই গোলে এগিয়ে থেকে বিরতিতে যায় বায়ার্ন।

দ্বিতীয়ার্ধে ফিরে ম্যাচের ৫২তম মিনিটে পেনাল্টি থেকে গোল করে ব্যবধান কমান এমরে কান। তবে খেলা শেষ হওয়ার আগে দিয়ে ৮৩ মিনিটের সময় স্কোরশিটে নাম তুলে বায়ার্নের সহজ জয় নিশ্চিত করেন জামাল মুসিয়ালা।

শেষ বাঁশি বাজতেই শিরোপা উদযাপনে মাতে নিগেলসম্যানের শিষ্যরা। সবমিলিয়ে বুন্দেসলিগার ইতিহাসে ৩১তম ও জার্মান লিগে ৩২তম বার চ্যাম্পিয়ন হলো জার্মানির সেরা ক্লাবটি।

এই জয়ে ৩১ ম্যাচ শেষে ৭৫ পয়েন্ট নিয়ে শিরোপা জিতলো বায়ার্ন। বাকি তিন ম্যাচে হারলেও ক্ষতি নেই তাদের। কেননা দ্বিতীয় স্থানে বরুশিয়া ডর্টমুন্ডের পয়েন্ট ৬৩ পয়েন্ট। তারা সবগুলো ম্যাচ জিতলেও ৭২ পয়েন্ট পর্যন্ত যেতে পারবে।

বৈশাখী নিউজ/ ইডি