সবাইকে মাস্ক পরাসহ স্বাস্থ্যবিধি মানতে হবে : স্বাস্থ্যমন্ত্রী

টিকা নিয়ে ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশের (টিআইবি) প্রতিবেদনকে উদ্দেশ্যপ্রণোদিত দাবি করে তা সঠিক নয় বলে মন্তব্য করেছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক।  সরকারের ইমেজ নষ্ট করার জন্য টিআইবি এই প্রতিবেদন দিয়েছে বলে মনে করেন তিনি।

সোমবার সচিবালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে সম্প্রতি টিকা নিয়ে দেওয়া টিআইবির প্রতিবেদন প্রসঙ্গে এসব মন্তব্য করেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী।  এ সময় করোনা প্রতিরোধী টিকা কিনতে সরকারের প্রায় ২০ হাজার কোটি টাকা খরচ হয়েছে বলে জানান তিনি।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, ৪০ হাজার কোটি টাকার টিকা দেয়া হয়েছে বলেছি কিন্তু এটা সরকার খরচ করেছে এটা বলিনি। সরকার খরচ করেছে ২০ হাজার কোটি টাকা প্রায়। বাকিটা যে সাড়ে ৯ কোটি টিকা বিনামূল্য পেয়েছি সেটার দাম হিসাব করে বলেছি।

তিনি বলেন, ইতোমধ্যে ১৩ কোটি প্রথম ডোজ টিকা দেওয়া হয়েছে। দ্বিতীয় ডোজ ১১ কোটি ৬০ লাখ এবং বুস্টার ডোজ দেওয়া হয়েছে ১ কোটি ১৩ লাখ মানুষকে।  ভারত থেকে যে দামে টিকা কেনা হয়েছিল, অন্যান্য দেশ থেকেও কাছাকাছি দামে টিকা কেনা হয়েছে।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী আরও বলেন, টিআইবি সার্ভে করেছে ১০৫টি টিকা কেন্দ্রকে ভিত্তি করে। যেখানে টিকা কেন্দ্র ছিল ১ লাখের ওপরে।  ১ হাজার ৮০০ লোকের মধ্যে সার্ভে হয়েছে। যেখানে ১২ কোটির ওপরে মানুষকে টিকা দেওয়া হয়েছে। তাদের সার্ভের সাইজ এত ছোট যেটা সঠিক নয়।

মন্ত্রী বলেন, আমরা এটি গ্রহণ করলাম না। কারণ ভুলভ্রান্তি থাকলেতো আমরা গ্রহণ করতে পারি না। সেজন্য এটা আমরা প্রত্যাখ্যান করি।

জাহিদ মালেক বলেন, দেশে করোনার চতুর্থ ঢেউ যে আর আসবে না সেটা হলফ করে বলা যাচ্ছে না। তাই সবাইকে মাস্ক পরাসহ স্বাস্থ্যবিধি মানতে হবে। ভারতে আবার করোনা সংক্রমণ বেড়েছে, তাই সবাইকে সতর্ক থাকার আহ্বান জানান স্বাস্থ্যমন্ত্রী।

বৈশাখী নিউজ/ ইডি