ইউক্রেনে নতুন মার্কিন রাষ্ট্রদূতের নাম ঘোষণা করলেন বাইডেন

মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন ইউক্রেনে নতুন রাষ্ট্রদূতের নাম ঘোষণা করেছেন। রাষ্ট্রদূত হিসেবে নিয়োগ পেয়েছেন খ্যাতনামা কূটনীতিক ব্রিজেট ব্রিঙ্ক। মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যান্থনি ব্লিংকেন ও প্রতিরক্ষামন্ত্রী লয়েড অস্টিনের কিয়েভ সফরের মধ্যে সোমবার (২৫ এপ্রিল) এ ঘোষণা দেওয়া হয়। খবর আলজাজিরার।

অভিজ্ঞ কূটনীতিক ব্রিঙ্ক এখন স্লোভাকিয়ায় যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূত হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। ২০২০ সালে সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের আমল থেকে খালি পড়ে আছে ইউক্রেনে মার্কিন দূতাবাসের রাষ্ট্রদূত পদটি। যা এখন পূরণ করবেন ব্রিঙ্ক।

ইউক্রেনে রাশিয়ার অভিযানের দুই মাস পর সম্প্রতি যুক্তরাষ্ট্র জানায়, তারা কিয়েভের নিরাপত্তা পরিস্থিতি পর্যালোচনা করছে। পরিস্থিতি বিবেচনা করে যত দ্রুত সম্ভব দূতাবাস খোলার চেষ্টা করা হবে। কিয়েভে যুক্তরাষ্ট্রের দূতাবাস এখনও বন্ধ রয়েছে। এর কার্যক্রম পরিচালিত হচ্ছে পোল্যান্ডের একটি অস্থায়ী কার্যালয় থেকে। মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, চলতি সপ্তাহ থেকেই যুক্তরাষ্ট্রের কূটনীতিকরা ইউক্রেনে ফিরতে শুরু করবেন।

রোববার (২৪ এপ্রিল) কিয়েভ এসে পৌঁছান মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যান্থনি ব্লিংকেন ও প্রতিরক্ষামন্ত্রী লয়েড অস্টিন। রাতেই বিশেষ গোপনীয়তার সঙ্গে ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কির সঙ্গে বৈঠক করেন তারা। ইউক্রেনে রুশ সামরিক অভিযানের পর মার্কিন প্রশাসনের সঙ্গে এটাই জেলেনস্কির সবচেয়ে উচ্চ পর্যায়ের বৈঠক।

এএফপির প্রতিবেদন মতে, ব্লিংকেন ও অস্টিন ইউক্রেনের প্রেসিডেন্টকে প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন, যুক্তরাষ্ট্র ৩০ কোটি ডলারেরও বেশি সামরিক সহায়তা দেবে। এর সঙ্গে ১৬ কোটি ৫০ লাখ ডলারের গোলাবারুদ বিক্রির অনুমোদনও থাকছে। তারা আরও জানান, শিগগিরই প্রেসিডেন্ট বাইডেন ইউক্রেনে যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূত নিয়োগ দেবেন। পরদিনই নতুন রাষ্ট্রদূতের নাম ঘোষণা করলেন বাইডেন।

বৈশাখী নিউজ/ জেপা