রাশিয়ার ‘সস্তার তেল’ গোপনে বেশি করে কিনছে চীন

রাশিয়া থেকে এখন বেশি করে তেল কিনছে চীন। রীতিমতো দর-কষাকষি করে চুপিসারে দেশটি থেকে চীন তেল কেনা বাড়িয়ে দিয়েছে।

বলা হচ্ছে, ইউক্রেনে রুশ বাহিনীর হামলা শুরুর পর রাশিয়া থেকে পশ্চিমা ক্রেতারা তেল কেনা বন্ধ বা কমিয়ে দেওয়ায় যে শূন্যস্থান তৈরি হয়েছে, তা পূরণ করছে বেইজিং। খবর রয়টার্সের।

তেল ও গ্যাসের তথ্য বিশ্লেষণ করে এমন একটি প্রতিষ্ঠান ভোরটেক্সার দেওয়া তথ্য অনুযায়ী, চলতি মে মাসে রাশিয়া থেকে চীনের তেল আমদানির রেকর্ড হয়েছে। এ মাসে প্রতিদিন রাশিয়া থেকে প্রায় ১১ লাখ ব্যারেল তেল আমদানি করেছে চীন।

জাহাজের তথ্যের বরাতে রয়টার্স জানিয়েছে, এ সময়ে রাশিয়া থেকে তেল কিনেছে চীনের ইউনিপেক ও ঝেনহুয়া অয়েল। ইউনিপেক হলো এশিয়ার সর্ববৃহৎ তেল পরিশোধনকারী কোম্পানি সিনোপেক করপোরেশনের বাণিজ্যিক শাখা।

আর ঝেনহুয়া চীনের প্রতিরক্ষা বাহিনীর কোম্পানি নরিনকোর অঙ্গপ্রতিষ্ঠান। ব্যবসায়ীরা বলছেন, এ ছাড়া সম্প্রতি রাশিয়া থেকে চীনে তেলের বড় সরবরাহকারী হিসেবে আবির্ভূত হয়েছে হংকংয়ে নিবন্ধিত লিভনা শিপিং লিমিটেড।

রুশ বাহিনী ইউক্রেনে হামলা করার পরপরই যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য ও তেলের বড় কিছু ক্রেতা রাশিয়া থেকে তেল আমদানি নিষিদ্ধ করে। এদিকে ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ) মস্কোর ওপর আরও কিছু নিষেধাজ্ঞা চূড়ান্ত করেছে।

এর মধ্যে রাশিয়ার তেল কেনার ওপর নিষেধাজ্ঞা রয়েছে। ইউরোপের তেল পরিশোধনকারী কিছু কোম্পানিও এরই মধ্যে রাশিয়া থেকে তেল কেনা বন্ধ করে দিয়েছে।

বৈশাখী নিউজ/ এপি