ফরিদপুরে ভয়ংকর খাজা গ্রুপের ৫ সদস্য গ্রেফতার

তারেকুজ্জামান, ফরিদপুর প্রতিনিধি: গত কয়েকদিন আগে ফরিদপুর-খুলনা মহাসড়কে রামদা, ছোড়া, লাটিসহ দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র-সজ্জিত হয়ে মহাসড়কে দাপিয়ে বেড়ায় একটি সন্ত্রাসী গ্রুপ। বিষয়টি সোশ্যাল মিডিয়াসহ বিভিন্ন মিডিয়াতে প্রচারিত হলে পুলিশের নজরে আসার পর ৫ জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

জানা গেছে, নবাগত পুলিশ সুপার মোহাম্মদ শাজাহানের নির্দেশে দ্রুত বিষয়টি নিয়ে অনুসন্ধান  শুরু করে পুলিশ।চাঞ্চল্যকর বিষয়টির তদন্তে ফেসবুকসহ সোশ্যাল মিডিয়াতে ছড়িয়ে পড়া ভিডিও ফুটেজ সমূহ সংগ্রহ করা হয়। ভিডিও ফুটেজ দেখে সুনির্দিষ্ট ভাবে পাঁচ জন আসামিকে সনাক্ত করে গ্রেফতার করা হয়। ভিডিও ফুটেজ দেখে মিছিলের অগ্রভাগে থাকা রামদা বা ছেনদা হাতের ০৩ জন সাগর বেপারী, নাজমুল, রাকিব এবং লোহার রড হাতে থাকা তুষারকে গ্রেফতার করা হয়। এ ছাড়া মিছিলের অন্যতম আয়োজক ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সাব্বির ও তুষার সহ মোট পাঁচজনকে গ্রেপ্তার করা হয়।

গ্রেফতারের বিষয়ে ফরিদপুর পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে জেলা পুলিশের উদ্যোগ আজ রবিবার  দুপুরে এক প্রেস ব্রিফিং করে জানানো হয়।

এ সময় নবাগত পুলিশ সুপার মোহাম্মদ শাজাহান বলেন,  সন্ত্রাসের প্রতি জিরো টলারেন্স অবস্থানকে সমুন্নত রেখে এই ঘটনায় সংশ্লিষ্ট সবাইকে দ্রুততম সময়ের মধ্যে আইনের আওতায় নিয়ে আসার জন্য কঠোর অভিযান চলমান আছে। ফরিদপুর শহরের সন্ত্রাসী কার্যক্রমের জন্য কাউকে ন্যূনতম প্রশ্রয় দেওয়া হবে না। ফরিদপুর শহরে সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে সকল অভিযান চলমান থাকবে এবং আরো বেগবান করা হবে। সন্ত্রাসীদের ফরিদপুরের মাটিতে কোন জায়গা দেয়া হবে না বলে জানান পুলিশ সুপার।

উল্লেখ্য , ওয়ার্ড ছাত্রলীগের কমিটি দেওয়াকে কেন্দ্র করে ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ও থানা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি গ্রুপের সাথে ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি ও ছাত্রলীগের পদ প্রত্যাশী সোহাগ গ্রুপের বিরোধ প্রকট আকার ধারণ করে। হুমকি ধামকি এবং গালিগালাজ চরম আকার রূপ নেয় যার ফলশ্রুতিতে শোডাউনের মাধ্যমে অপর গ্রুপকে ভয় দেখানোর ছিল প্রধান কারণ।