ঘূর্ণিঝড়ের সময় করনীয়

উপকূলে আঘাত হানতে শুরু করেছে বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট শক্তিশালী ঘূর্ণিঝড় ‘ফণী’। এরই মধ্যে ভারতের ওড়িশা রাজ্যে আছড়ে পড়েছে এটি। ঘণ্টায় ২০০ থেকে ২১০ কিলোমিটার বেগে তাণ্ডব চালাচ্ছে ওই রাজ্যের পুরী ও গোপালপুর সৈকত শহরে।
অবশ্য আগেই ওই অঞ্চলের মানুষজনকে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে নিরাপদ আশ্রয়কেন্দ্রে।
যদিও প্রাকৃতিক দুর্যোগ কোনোভাবেই প্রতিহত করা সম্ভব নয়। তবে সতর্ক থাকলে বিপর্যয় এড়ানো সম্ভব।
ঘূর্ণিঝড়ের আগে, তাণ্ডব চলার মধ্যে এবং ঝড় থেমে যাওয়ার পর কী করবেন আর কী করা উচিত নয়, চলুন তা দেখে নিই-
ঘূর্ণিঝড়ের আগে
• যথাসম্ভব নিজেকে শান্ত রাখার চেষ্টা করুন। এই সময়ে অনেক গুজব রটে। সে সবে কান দেবেন না।
• লোকের মুখের কথা না শুনে শুধুমাত্র সরকারি বার্তায় বিশ্বাস রাখুন।
• ঝড়ে গাছ পড়ে গিয়ে বিদ্যুৎ বিভ্রাট হতে পারে। তাই নিজের মোবাইল ফোন আগেই সম্পূর্ণ চার্জ দিয়ে রাখুন। বিপদের সময় যেকোনও মুহূর্তে মোবাইলের দরকার হতে পারে।
• ধারালো জিনিস সরিয়ে রাখুন।
• জরুরিকালীন প্রাথমিক চিকিৎসা সামগ্রী কাছে রাখুন।
• শিশুদের বাড়ির ভিতর নিরাপদ স্থানে রাখুন।
ঘূর্ণিঝড়ের সময়
• ঝড় শুরু হলে প্রথমেই বাড়ির ভিতরের বিদ্যুৎ সংযোগ বন্ধ করে দিন। তা না হলে বিদ্যুতের তার ছিঁড়ে দুর্ঘটনা ঘটতে পারে।
• ঘরের দরজা-জানলা ভাল করে বন্ধ রাখুন।
• ফোটানো বা ফিল্টারিং করা পানি পান করুন।
• ঝড়ের সময় যদি রাস্তায় থাকেন, তা হলে যত দ্রুত সম্ভব কোনও সুরক্ষিত স্থানে আশ্রয় নিন।
• গাছ বা বিদ্যুতের খুঁটির নিচে দাঁড়াবেন না।
ঘূর্ণিঝড়ের পর
• ঝড়ে ক্ষতি হয়েছে এমন কোনও বাড়িতে আশ্রয় নেবেন না।
• ছিঁড়ে পড়ে থাকা বিদ্যুতের তারে হাত দেবেন না।