বিশ্বে প্রথমবারের মতো মানবদেহে শূকরের হৃৎপিণ্ড প্রতিস্থাপন

সফলভাবে শূকরের দেহ থেকে মানবদেহে কিডনি প্রতিস্থাপনের পর এবার নতুন সফলতা পেলেন যুক্তরাষ্ট্রের সার্জনরা। এবার ৫৭ বছর বয়সী একজনের দেহে শূকরের হৃৎপিণ্ড প্রতিস্থাপন করা হয়েছে।

সোমবার জানা যায় যুক্তরাষ্ট্রের মেরিল্যান্ড মেডিক্যাল স্কুলে শুক্রবার এ সার্জারি হয়। রোগীর অবস্থা বেশ ভালোই।

এই সার্জারি সফলতার মুখ দেখায় প্রাণীদেহ থেকে মানবদেহে অঙ্গ প্রতিস্থাপনের ক্ষেত্রে বড় ভিত্তি প্রতিষ্ঠিত হয়েছে।

শূকরের হৃৎপিণ্ড ধারণ করা রোগীর নাম ডেভিড বেনেট। তার শারীরিক অবস্থা ভালো ছিল না। প্রচলিত পদ্ধতিতে মানবদেহ থেকে তিনি অঙ্গ প্রতিস্থাপণে সক্ষম ছিলেন না। তাই তার দেহেই শুকরের হৃৎপিণ্ড প্রতিস্থাপনের সিদ্ধান্ত হয়।

বর্তমানে বেনেট ধীরে ধীরে সার্জারির ধকল কাটিয়ে উঠছে।

সার্জারির আগে তিনি বলেছিলেন, ‘পরিস্থিতি এমন, হয় আমি মরবো নয়তো অঙ্গ প্রতিস্থাপন করবো। আমি বাঁচতে চাই। আমি জানি, পুরো বিষয়টি অন্ধকারে গুলি ছোড়ার মতো।

কিন্তু এটাই আমার শেষ সুযোগ।’

তিনি সর্বশেষ কয়েক মাস ধরে শয্যাশায়ী, হার্ট ও লাং বাইপাস মেশিনের ওপর নির্ভর ছিলেন।
আমি সুস্থ হয়ে বিছানা ছাড়ার অপেক্ষায় আছি, এমনটাই বলেছিলেন তিনি।

যুক্তরাষ্ট্রের খাদ্য ও ওষুধ প্রশাসন থেকে নতুন বছরের শুরুতেই এই সার্জারির অনুমতি দেয়া হয়। এটাই বেনেটের জন্য ছিল বাচার শেষ আশা।

সফল সার্জারি শেষে সার্জারি দলের প্রধান বার্টলে গ্রিফিথ বলেন, ‘অঙ্গ প্রতিস্থাপনে যে সংকট তা কাটাতে আমরা আরও একধাপ এগিয়ে গেলাম। আমরা সাবধানতার সঙ্গে এগিয়ে যাচ্ছি। আমরা আশাবাদি যে এই সার্জারি ভবিষ্যতে রোগীদের জন্য একটি নতুন সুযোগ তৈরি করবে।’

বৈশাখী নিউজ/ ইডি