ইউক্রেন যুদ্ধ বন্ধে ‘আলোচনার’ আহ্বান মোদির

ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি সোমবার ইউরোপীয় সফরের শুরুতে ইউক্রেনে যুদ্ধের অবসানে সংলাপের আহ্বান জানিয়েছেন। তবে তিনি আগ্রাসনের বিষয়ে রাশিয়ার নিন্দা জানানো থেকে সরে এসেছেন।

ভারত, রাশিয়া থেকে তার বেশিরভাগ সামরিক হার্ডওয়্যার আমদানি করে। দীর্ঘদিন ধরে পশ্চিমাদের এবং মস্কোর মধ্যে কূটনৈতিক আলোচনা চালিয়েছে শুধুমাত্র অবিলম্বে যুদ্ধ শেষ করার জন্য। খবর এএফপি’র।

বার্লিনে জার্মান চ্যান্সেলর ওলাফ স্কোলজের সাথে আলোচনার পর মোদি সাংবাদিকদের বলেন, ‘আমরা ইউক্রেন সংকট শুরু হওয়ার পর থেকে যুদ্ধবিরতির উপর জোর দিয়েছি এবং সমাধানের একমাত্র উপায় হিসেবে আলোচনার আহ্বান জানিয়েছি।’

তিনি বলেন, ‘আমরা বিশ্বাস করি এই যুদ্ধে কেউ বিজয়ী হবে না, সবাই হেরে যাবে, যে কারণে আমরা শান্তির পক্ষে।’

তিনি বলেন, ইউক্রেনীয়দের উপর মানবিক নির্যাতনের প্রভাবের পাশাপাশি, তেলের দাম এবং বিশ্বব্যাপী খাদ্য সরবরাহের চাপও ‘বিশ্বের প্রতিটি পরিবারের উপর বোঝা হয়ে দাঁড়াচ্ছে।

জার্মানির চ্যান্সেলর জোর দিয়ে বলেন, ইউক্রেনের যুদ্ধ ‘বৈশ্বিক আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতিকে’ হুমকির মুখে ফেলেছে।

তিনি বলেন, ‘ইউক্রেনের ওপর হামলার মাধ্যমে রাশিয়া আন্তর্জাতিক আইন লংঘন করেছে।’

স্কোলজ আরো বলেন, ‘ইউক্রেনের বেসামরিক নাগরিকদের উপর নৃশংস হামলা এবং যুদ্ধ রাশিয়া জাতিসংঘ সনদের নীতি লঙ্ঘন করছে।’ প্রেসিডেন্ট ভøাদিমির পুতিনকে তার সৈন্য প্রত্যাহারের আহ্বানের পুনরাবৃত্তি করেছেন।

তিনি বলেন, ‘আমরা পুঙ্খানুপুঙ্খভাবে আলোচনা করেছি যে আমরা নতুন প্রজন্মের জন্য একটি ভাল ভবিষ্যত গড়ে তুলতে চাই। একে অপরের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করে নয়, একসাথে অর্থনৈতিক উন্নয়ন সম্ভব করার মাধ্যমে।’

দুই নেতা পরে একটি মুক্ত বাণিজ্য চুক্তিতে ইউরোপীয় ইউনিয়ন এবং ভারতের মধ্যে আসন্ন আলোচনার জন্য ‘দৃঢ় সমর্থন’ প্রকাশ করে একটি যৌথন ঘোষণায় স্বাক্ষর করেছে।

স্কোলজ আগামী মাসে জি-৭ নেতাদের শীর্ষ সম্মেলনে বিশেষ অতিথি হিসেবে মোদিকে আমন্ত্রণ জানিয়েছেন, যা রাশিয়ার বিরুদ্ধে একটি বৃহত্তর জোট গঠনের প্রচেষ্টার অংশ হিসেবে দেখা হচ্ছে।

বৈশাখী নিউজ/ বিসি