শতাধিক নিরাপত্তা সদস্যকে খুন অথবা গুম করেছে তালেবান: এইচআরডব্লিউ

আফগানিস্তানের ক্ষমতা দখলের পর থেকে গেল তিন মাসে সাবেক আফগান নিরাপত্তা বাহিনীর একশরও বেশি সদস্যকে হত্যা অথবা গুম করেছে তালেবান বাহিনী। মঙ্গলবার মানবাধিকার সংস্থা হিউম্যান রাইটস ওয়াচ ‘এইচআরডব্লিউ’ এর এক প্রতিবেদনে এমনটাই বলা হয়েছে।

সংস্থাটি বলেছে, তালেবান দেশটির ক্ষমতাচ্যুত সরকার এবং সামরিক বাহিনীর সদস্যদের ক্ষমা করে দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিলেও তা বাস্তবায়ন করতে পারেনি।

সংস্থাটির প্রতিবেদনে বলা হয়েচে ১৫ অগাস্ট থেকে ৩০ অক্টোবরের মধ্যে আফগানিস্তানের চারটি প্রদেশে আগের সরকারের নিরাপত্তাবাহিনীর অন্তত ১০০ জনকে হত্যা করা হয়েছে এবং ৪৭ জনকে গুম করা হয়েছে।

এদের মধ্যে আছেন, আফগান ন্যাশনাল সিকিউরিটি ফোর্সেস এর সাবেক সদস্য, পুলিশ, গোয়েন্দা বিভাগের সাবেক কর্মকর্তারা এবং মিলিশিয়া সদস্যরা।

ওই প্রতিবেদনে আরও বলা হয়েছে যে, সাবেক সরকারের কর্মী নিয়োগের যেসব কাগজপত্র তালেবান পেয়েছে, সেগুলো ঘেঁটেই এক এক করে চিহ্নিত করে ওইসব কর্মকর্তা-কর্মচারীদের গ্রেপ্তার এবং হত্যা করেছে।

প্রতিবেদনটি মোট ৬৭ জনের সাক্ষাৎকারের উপর ভিত্তি করে তৈরি করা হয়েছে। যার মধ্যে ৪০ জন প্রত্যক্ষদর্শী, নিহতদের আত্মীয়স্বজন এবং বন্ধুবান্ধব এবং তালেবান যোদ্ধাদের সাথে ব্যক্তিগত সাক্ষাৎ রয়েছে এমন ব্যক্তি।

তালেবান নেতারা ইচ্ছাকৃত এই হত্যাযজ্ঞ দেখেও না দেখার ভান করছেন বলে অভিযোগ করেছে এইচআরডব্লিউ। এমনকি হত্যাকাণ্ডের কথা অস্বীকারও করেছেন তালেবান শীর্ষ নেতারা।

যুক্তরাষ্ট্রের সেনারা ২০ বছরের যুদ্ধের পর আফগানিস্তান ছেড়ে চলে যাওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই তালেবান দেশটির নিয়ন্ত্রণ নেয়।

সে সময় তারা আশ্বাস দেয়, আগের সরকারের কর্মীরা সাধারণ ক্ষমার আওতায় নিরাপদ থাকবেন। এই নিরাপত্তা পাবেন পুলিশ, সেনাবাহিনীর সাবেক সদস্যরা এবং রাষ্ট্রের অন্যান্য শাখায় যারা কাজ করেছেন তারাও। তখনই এই আশ্বাস নিয়ে সন্দেহ করেছিলেন অনেকেই। সূত্র: সিএনএন

বৈশাখী নিউজ/ এপি