আন্তর্জাতিক ক্রিকেটকে বিদায় বললেন পোলার্ড

ওয়েস্ট ইন্ডিজের জার্সিতে আর দেখা যাবে না কিরণ পোলার্ডকে। দেশটির সীমিত ওভারের অধিনায়ক বুধবার আন্তর্জাতিক ক্রিকেটকে বিদায় বলে দিয়েছেন। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে এ ঘোষণা দিয়েছেন তিনি।

ইনস্টাগ্রামে এক ভিডিও বার্তায় পোলার্ড বলেছেন, ‘সতর্কতার সঙ্গে চিন্তাভাবনা করার পর আজ আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে অবসরের সিদ্ধান্ত নিয়েছি। আরও অনেক তরুণের মতো আমারও ১০ বছর বয়স থেকেই ওয়েস্ট ইন্ডিজের প্রতিনিধিত্ব করার স্বপ্ন ছিল। টি-টোয়েন্টি ও ওয়ানডেতে প্রায় ১৫ বছর ওয়েস্ট ইন্ডিজকে প্রতিনিধিত্ব করতে পেরে গর্বিত আমি।’

এরআগে ২০০৭ সালের এপ্রিলে অভিষেকের পর থেকে আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ারে ১২৩টি ওয়ানডে ও ১০১টি টি-টোয়েন্টি খেলেছেন পোলার্ড। ওয়ানডেতে ২ হাজার ৭০৬ রান করার সঙ্গে ৫৫টি উইকেট নিয়েছেন পোলার্ড। টি-টোয়েন্টিতে ১৫৬৯ রানের পাশাপাশি ৪২টি উইকেট নিয়েছেন।

অভিষেকের কথা এখনো মনে আছে পোলার্ডের। বুধবার সেটাই আবার মনে করলেন তিনি এভাবে, ‘২০০৭ সালে আমার ছেলেবেলার নায়ক, ব্রায়ান লারার নেতৃত্বে আমার আন্তর্জাতিক অভিষেকের কথা এখনো স্পষ্ট মনে করতে পারি। কিংবদন্তিদের পাশে খেলা, মেরুন রং পরা—এসবকে হালকাভাবে নিইনি আমি। সেটি বোলিং, ব্যাটিং বা ফিল্ডিং, যা–ই হোক না কেন।’

ক্যারিয়ারের ওয়েস্ট ইন্ডিজের অধিনায়কত্ব পাওয়া নিজের ‘সবচেয়ে বড় সম্মানের’ বলেছেন পোলার্ড। সব সময় সবার দারুণ সমর্থন পেয়ে এসেছেন বলেও জানিয়েছেন, ‘আরও অনেক খেলার মতোই এখানেও উত্থান-পতন ছিল। তবে সব সময়ই ওয়েস্ট ইন্ডিজ ক্রিকেটের সমর্থকদের সমর্থন ও ভালোবাসা পেয়ে এসেছি। ভবিষ্যতেও আমাদের দলের সাফল্যের জন্য এটি গুরুত্বপূর্ণ। আশা করি তারা বিশ্বস্ত সমর্থকের এ ভূমিকা পালন করে যাবে।’

পেশাদার ক্রিকেটারের জীবন কেমন, পোলার্ড মনে করিয়েছেন সেটিও, ‘মাঝে মাঝে পেশাদার ক্রিকেটার জীবনকে সবাই অনেক গ্ল্যামারের মনে করে। এমন একটা দিক আছে, কিন্তু আন্তর্জাতিক পর্যায়ে একজন খেলোয়াড়কে অনেক ত্যাগ স্বীকার করতে হয়। ঘর এবং পরিবার থেকে দূরে থাকাটা সহজ নয়, তবে আমি সব সময়ই পরিবারের সমর্থন পেয়ে এসেছি।’

তিনি আরও বলেন, ‘ওয়েস্ট ইন্ডিজের জার্সিতে যাদের জায়গা করে দিচ্ছি, তাদের সমর্থন দিয়ে যাব সব সময়। অসীম কৃতজ্ঞতায় আমার স্বপ্নপূরণে ওয়েস্ট ইন্ডিজ ক্রিকেটকে স্যালুট জানাই।’

বৈশাখী নিউজ/ এপি