৮ গুণ বেশি বেতনের প্রস্তাবের পরও পুতিনের এজেন্টদের ‘না’

ফেব্রুয়ারিতে বিশেষ অভিযান শুরুর পর থেকে ইউক্রেনে যাদের গোপন এজেন্ট করে পাঠিয়েছিলেন রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন, তারা আর কাজ করতে চাচ্ছেন না। স্বাভাবিক বেতনের চেয়ে ৮ গুণ বাড়িয়ে দেওয়ার প্রস্তাবকেও ‘না’ করেছেন তারা।

ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম মেইল অনলাইন এ সংক্রান্ত একটি প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে। এতে বলা হয়, পুতিনের গোপন এজেন্টরা ইউক্রেনের রুশ-অধিকৃত এলাকাগুলোয় কাজ করতে অস্বীকৃতি জানাচ্ছেন। তাদের বর্তমান বেতনের চেয়ে আটগুণ বেশি প্রস্তাবও দেওয়া হয়েছে। এতেও তারা রাজি নন।

ফেডারেল সিকিউরিটি সার্ভিসের (এফএসবি) অভ্যন্তরীণ দাবির বরাত দিয়ে প্রতিবদেনটি প্রকাশ করেছে মেইল অনলাইন।

যুদ্ধ শুরুর পর খেরসন, জাপোরিঝিয়া ও খারকিভ দখল করে রুশ সেনারা। এসব শহরে নিজেদের কর্তৃত্ব বজায় রাখতে সেনা সদস্যের পাশাপাশি সামরিক গোয়েন্দা মোতায়েনের সিদ্ধান্ত নেন পুতিন। একই সঙ্গে অঞ্চলগুলোয় নিয়মিত অভিযান চালানোও সিদ্ধান্ত আসে ক্রেমলিন থেকে। কিন্তু পুতিনের গোয়েন্দারা এসব অঞ্চলে বেশিদিন থাকতে রাজি হচ্ছেন না। যে কারণেই তাদের ছয় থেকে আটগুণ বেশি বেতন প্রস্তাব করা হয়।

খবরে বলা হয়েছে, এফএসবি এজেন্টরা পোস্টিং এড়িয়ে যাচ্ছেন। অধিকৃত এলাকা ছেড়ে যেতে তারা চিকিৎসকের কাছ থেকে নিজের বা পরিবারের সদস্যদের জন্য মেডিকেল সার্টিফিকেট নিচ্ছে বলে অভিযোগ রয়েছে। এ তথ্যের জন্য উই ক্যান এক্সপ্লেইন নামে একটি টেলিগ্রাম ফোরামের উদ্ধৃত দিয়েছে মেইল অনলাইন।

সংবাদমাধ্যমটির দাবি, পুতিনের ঘনিষ্ঠ মিত্র বোর্টনিকভ রুশ নিয়ন্ত্রিত ইউক্রেনে গুপ্তচরদের প্ররোচিত করতে ব্যর্থ হয়েছেন। উচ্চপদস্থ কর্মকর্তাদের মধ্যে পুতিনের প্রতি আনুগত্যের অভাবের কারণেও এজেন্টরা ইউক্রেনে থাককে চাচ্ছেন না। ফলে ক্রেমলিন মরিয়া হয়ে অপ্রশিক্ষিত বন্দী ও বেসামরিক লোকদের ফ্রন্টলাইন মোতায়েনের জন্য নিয়োগ করছে।

পুতিনের সিলোভিকি সিক্রেট সার্ভিসের প্রধানরা অবসরপ্রাপ্ত বা বহিষ্কৃত এজেন্টদের যুদ্ধক্ষেত্রে ভূমিকা রাখতে প্ররোচিত করার চেষ্টা করছেন। এফএসবি’র একটি সূত্র টেলিগ্রামের ওই ফোরামকে জানিয়েছে, তারা ২০০ জন অবসরপ্রাপ্ত সেনাকে ডেকে পাঠান। কিন্তু তাদের মধ্যে মাত্র তিনজন বিষয়টি নিয়ে ভাববেন বলে জানান। অথচ তাদের কল্পনার চেয়ে বেশি অর্থ ও সুবিধার প্রস্তাব দেওয়া হয়েছিল।

অধিকৃত অঞ্চলে পরিষেবা দিতে কর্মকর্তাদের মাসে ৫ হাজার ইউরো করে দেওয়া হয়েছে বলে দাবি করেছে ক্রেমলিন। যা তাদের স্বাভাবিক বেতনের আটগুণ। রণক্ষেত্রে যেসব যোদ্ধা রয়েছেন তাদের বেতনও এর চেয়ে কম।

খবরে আরও বলা হয়েছে, অসম্মানজনক কারণে যে কর্মকর্তারা বরখাস্ত হয়েছিলেন তারাও পুতিনের প্রস্তাব অগ্রাহ্য করছেন।

বৈশাখী নিউজ/ এপি