প্রমানিত হলো, বাংলাদেশের বিচার বিভাগ কতোটা স্বাধীন

দুই মামলায় বিএনপি চেয়ারপাসন খালেদা জিয়াকে ছয় মাস করে জামিন দেওয়া নিয়ে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, “প্রমানিত হলো, বাংলাদেশের বিচার বিভাগ কতোটা স্বাধীন।”

মঙ্গলবার দুপুরে রাজধানীর কাওলায় ‘ঢাকা এলিভেটেড এক্সপ্রেস ওয়ের’ কাজের অগ্রগতি পরিদর্শনে গিয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এ কথা বলেন তিনি।

সরকারের হস্তক্ষেপের কারণে খালেদা জিয়ার মুক্তি মিলছেনা বিএনপির এমন অভিযোগ কতোটা সত্য জানতে চাইলে ওবায়দুল কাদের বলেন, “আমরা সব সময়ই বলে আসছি। বিচার বিভাগ স্বাধীন ভাবে দায়িত্ব পালন করে আসছে। শেখ হাসিনা সরকার এই পর্যন্তআদালতের কার্যক্রমেকোন প্রকার হস্তক্ষেপ করেনি।

“বেগম জিয়ার মামলায়ও আলাদা কিছু হয় নি। এখানে আদালত যখন যেই মামলায় জামিন দিতে চেয়েছে, তা স্বাধীন ভাবে জামিন দিয়েছে।

“আজকেও যে জামিন দিয়েছে, এই সরকারের আমলে বাংলাদেশের বিচার বিভাগ কতটা স্বাধীন সেটা আবার প্রমানিত হলো।”

“তারা শুধু শুধু বলার জন্যই বলেছেন, বিরোধীতার জন্য বলেছেন। বেগম জিয়ার মুক্তির বিষয়ে, তারা দলীয় ভাবে কিছু করতে না পেরে সব কিছু সরকারে ঘারে চাপায়, যত দোষ নন্দ ঘোষ। এটাই তাদের রাজনীতি। আজকে আবারও প্রমানিত হলো বাংলাদেশের বিচার বিভাগ স্বাধীন।”

“তিনি জেল থেকে ছাড়া পাওয়ার পথে যে অন্তরায় গুলো আছে। সবগুলো মামলায় জামিন পাওয়ার নিশ্চয়তা পেলে জামিন পাবেন, আদালত যদি নির্দেশ দেন তাকে জেলে রাখা হবে না, মুক্তি দেওয়া হবে। এখানে সরকারের কোন বাধা থাকতে পারে না। সরকার এখানে কোন অন্তরায় নয়। এটা আদালতের ব্যপার। সব মামলা থেকে জামিন পেলে মুক্তির বিষয়ে সরকার অন্তরায় হবে না।”

উদ্দেশ্য মূলকভাবে সরকার বগুড়ায় ইভিএম দিয়েছে বিএনপির এমন অভিযোগের বিষয়ে জানতে চাইলে আওয়ামী রীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, “অতীতে দেখা গেছে ইভিএম যেখানে হয়েছে, সেখানে বিরোধী দলই সুবিধাটা বেশি পেয়েছে, বিরোধী দলই জিতেছে। কাজেই টেকনলজি নিয়ে সন্ধেহ করার কোন কারণ নেই। বগুড়ায় সুষ্ঠ অবাধ ও নিরপেক্ষ নির্বাচন হবে।”