লজ্জার হারে বিশ্বকাপ শেষ বাংলাদেশের

ভরাডুবি ও লজ্জায় বিশ্বকাপের শেষেও হার। এবারের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের শেষ ম্যাচে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ৮ উইকেটে হেরেছে বাংলাদেশ।

এই ম্যাচে টসে হেরে আগে ব্যাট করে মাত্র ৭৩ রানে গুটিয়ে গিয়েছিল বাংলাদেশের ইনিংস। ছোট লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে ১৩.৪ ওভার হাতে রেখেই জয় তুলে নিয়েছে অজিরা।

অস্ট্রেলিয়াকে উড়ন্ত সূচনা এনে দেন দুই ওপেনার ডেভিড ওয়ার্নার ও অ্যারন ফিঞ্চ। ওয়ার্নারের চেয়ে খানিকটা চড়া মেজাজে ব্যাট করছিলেন ফিঞ্চ। যদিও অজি অধিনায়ককে ব্যক্তিগত ৪০ রানে বোল্ড করে আউট করেন তাসকিন আহমেদ।

নিজের প্রথম ওভারেই ডেভিড ওয়ার্নারকে দারুণ এক সুইং বলে বোল্ড করেন শরিফুল ইসলাম। দুই ওপেনার ফিরে গেলেও অস্ট্রেলিয়াকে জিতিয়ে মাঠ ছেড়েছেন গ্ল্যান ম্যাক্সওয়েল ও মিচেল মার্শ।

এর আগে নিজেদের শেষ ম্যাচে টস হেরে ব্যাটিং করতে নেমে শুরুতেই চাপে পরে বাংলাদেশ। ইনিংসের তৃতীয় বলে মিচেল স্টার্কের বলে বোল্ড হন লিটন দাস। রানের খাতা না খুলেই প্রথম বলে সাজঘরে ফেরেন এই ওপেনার।

খানিক পর দলীয় ৬ রানে সৌম্য সরকারকে ৫ রানে বোল্ড করেন জশ হ্যাজেলউড। ২ উইকেট হারিয়ে বসা বাংলাদেশকে আরও বিপদে ফেলেন মুশফিকুর রহিম। দলীয় ১০ এবং ব্যক্তিগতু ১ রানে গ্লেন ম্যাক্সওয়েলের ওভারে লেগ বিফোরের ফাঁদে পড়েন তিনি।

৩ ব্যাটসম্যানের বিদায়ের পর নাইম শেখের সঙ্গে জুটি গড়েন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। তবে এই দুজনের ২২ রানের জুটি ভাঙেন হ্যাজেলউড। ১৭ রান করে আউট হন তিনি। আগের ম্যাচে প্রথম বলে ০ রানে আউট হওয়া আফিফ এদিনও হতাশ করেছেন। ৪ বলে ০ রানে ফেরেন তিনি।

৩৩ রানে ৫ ব্যাটসম্যানের বিদায়ের পর শামিম হোসেনকে সঙ্গে নিয়ে রান বাড়াতে থাকেন মাহমুদউল্লাহ। তবে ১১তম ওভারে এই দুজনের জুটি ভাঙেন অ্যাডাম জ্যাম্পা। ১৯ রান করে শামিম ফিরলে পরের বলেই শেখ মেহেদিকে ফেরান এই লেগি।

মাহমুদউল্লাহও বাকিদের আসা-যাওয়ার মিছিলে যোগ দেন। ১৮ বলে ১৬ রান করে সাজঘরে ফেরেন তিনি। এরপর বোলিংয়ে এসে ১৫তম ওভারে আরও দুই ব্যাটসম্যানকে ফিরিয়ে ৫ উইকেট নেয়ার কীর্তি গড়েন জ্যাম্পা। বাংলাদেশ অল আউট হয় ৭৩ রানে।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

বাংলাদেশ: ৭৩/১০ (১৫ ওভার) (শামীম ১৯, মাহমুদউল্লাহ ১৬) (জাম্পা ৫/১৯)

অস্ট্রেলিয়া: ৭৮/১ (৬.২ ওভার) (ওয়ার্নার ১৮, ফিঞ্চ ৪০, মার্শ ১৬*, ম্যাক্সওয়েল ০*; তাসকিন ১/৩৬, শরিফুল ১/৯)

বৈশাখী নিউজ/ ইডি