ইসি আইন প্রণয়নে রাষ্ট্রপতির ভূমিকা চায় জাসদ

নির্বাচন কমিশন (ইসি) গঠন প্রক্রিয়ার অংশ হিসেবে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদের সঙ্গে সংলাপে বসেছে ১৪ দলীয় জোটের অন্যতম শরিক দল জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল (জাসদ)।

বুধবার (২২ ডিসেম্বর) বঙ্গভবনে রাষ্ট্রপতির সঙ্গে জাসদের সাত সদস্যের প্রতিনিধিদল সংলাপে বসে। এ সময় তারা রাষ্ট্রপতিকে একটি লিখিত প্রস্তাব দেয়।

আলোচনার শুরুতেই ইসি গঠনে রাজনৈতিক দলগুলোর মতামত নিতে সংলাপের উদ্যোগ নেওয়ায় রাষ্ট্রপতিকে সাধুবাদ জানান জাসদের নেতারা। সংলাপে জাসদ নেতারা রাষ্ট্রপতিকে তাঁদের মতামত জানান।

দলের সভাপতি হাসানুল হক ইনু বলেছেন, পাঁচ বছর পর পর যেন ইসি গঠন করতে গিয়ে বিব্রত হতে না হয়, সে কারণেই তারা এই আইন প্রণয়ন এবং আইন প্রণয়নে রাষ্ট্রপতির ভূমিকা প্রত্যাশা করছেন।

তিনি বলেন, নির্বাচন কমিশন গঠন নিয়ে পাঁচ বছর পর পর একটি বিব্রতকর অবস্থায় পড়তে হয়। এ অবস্থা থেকে যেন স্থায়ী একটি সমাধান পাওয়া যায়, তার জন্য আমরা রাষ্ট্রপতির ভূমিকা প্রত্যাশা করছি। নির্বাচন কমিশন গঠন নিয়ে ভবিষ্যতে আইনি কাঠামো করতে রাষ্ট্রপতি যেন সরকারকে দিকনির্দেশনা দেন, আমরা সে কথা বলেছি।

ইসি গঠনে সার্চ কমিটি করতে দেওয়া মতামতে জাসদ জানায়, নির্বাচন কমিশন গঠনে রাষ্ট্রপতির উদ্যোগে সার্চ কমিটি গঠন করার প্রক্রিয়াকে সুনির্দিষ্ট ও স্থায়ী কাঠামোগত রূপ দেওয়াসহ সুনির্দিষ্ট আইন প্রণয়ন করে নির্বাচনব্যবস্থা নিয়ে সব বিতর্কের অবসান করা প্রয়োজন।

জাসদ আরো জানায়, সার্চ কমিটি গঠনে সরাসরি কোনো ব্যক্তির নাম প্রস্তাব করা সমীচীন নয়। সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগের বিচারপতি, বাংলাদেশ সরকারি কর্মকমিশনের (পিএসসি) চেয়ারম্যান, মহা হিসাব নিরীক্ষক ও নিয়ন্ত্রকসহ সাংবিধানিক পদে অধিষ্ঠিত ব্যক্তিদের মধ্য থেকেই সার্চ কমিটির সদস্য মনোনয়ন দেওয়া সমীচীন।

সংলাপে অংশ নেন জাসদের সভাপতি হাসানুল হক ইনু, সাধারণ সম্পাদক শিরিন আখতার, কার্যকরী সভাপতি রবিউল আলম, স্থায়ী কমিটির সদস্য মোশারেফ হোসেন, সহ-সভাপতি মীর হোসাইন আখতার ও রেজাউল করিম তানসেন।

বৈশাখী নিউজ/ জেপা