রাশিয়ার তেলের ওপর নিষেধাজ্ঞার প্রস্তুতি ইইউ

রাশিয়ার খনিজ তেল বিক্রির ওপর নিষেধাজ্ঞা দিতে যাচ্ছে ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ)। এদিকে রুশ জ্বালানির সবচেয়ে বড় ক্রেতা জার্মানিও এতে সমর্থন দিচ্ছে। বার্তা সংস্থা রয়টার্স।

এই নিষেধাজ্ঞা হলে কয়েকদিনের মধ্যেই মস্কো বড় ধরনের একটি রাজস্ব প্রবাহ থেকে বঞ্চিত হতে পারে। ইউরোপীয় কমিশন চলতি সপ্তাহে রাশিয়ার বিরুদ্ধে ইইউয়ের নিষেধাজ্ঞার ষষ্ঠ দফা প্যাকেজ প্রস্তাব করবে বলে ধারণা করা হচ্ছে, এর মধ্যে রাশিয়ার তেল কেনার ওপর সম্ভাব্য নিষেধাজ্ঞাও থাকছে।

ইউরোপে জ্বালানি রপ্তানি করে রাশিয়া প্রতিদিন কোটি কোটি ইউরো আয় করছে যা ক্রেমলিনের যুদ্ধ প্রচেষ্টায় তহবিল যোগাচ্ছে বলে অভিযোগ ইউক্রেইনের। রাশিয়ার জ্বালানি রপ্তানি এখনও অনেকাংশেই আন্তর্জাতিক নিষেধাজ্ঞার আওতা মুক্ত আছে।

নিজের রাত্রিকালীন ভিডিও বক্তৃতায় ইউক্রেইনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি বলেছেন, ‘এই প্যাকেজে জ্বালানি সম্পদ থেকে রাশিয়ার রাজস্ব আয় বন্ধের পরিষ্কার পদক্ষেপ থাকা উচিত।’

সোমবার জার্মানি জানিয়েছে, রাশিয়ার তেলের ওপর ইইউয়ের আশু নিষেধাজ্ঞায় সমর্থন দেওয়ার প্রস্তুতি নিয়েছে তারা।

জার্মানির অর্থনীতিমন্ত্রী রবার্ট হাবেক জানিয়েছেন, তারা এমন একটা পরিস্থিতিতে পৌঁছতে পেরেছেন যেখানে জার্মানি তেল নিষেধাজ্ঞার প্রভাব সামাল দিতে পারবে।

রাশিয়ার তেল আমদানি বিষয়ে একটি দৃঢ় সিদ্ধান্ত নেয়ার ক্ষেত্রে জার্মানির চ্যান্সেলর ওলাফ শলৎস ক্রমবর্ধমান চাপে ছিলেন। রাশিয়ার বিরুদ্ধে ইউক্রেইনকে সমর্থন দেওয়ার ক্ষেত্রে অন্য পশ্চিমা নেতাদের চেয়ে তিনি অনেক বেশি সতর্ক।

বৈশাখী নিউজ/ এপি