নিজের স্বার্থেই পরতে হবে মাস্ক: মেয়র আতিক

‘কয়েকদিনের ক্যাম্পেইনের পরে মাঠে ম্যাজিস্ট্রেটরা নামবেন। হুট করে কোনো প্রতিষ্ঠান আমরা বন্ধ করতে চাই না। আমরা জনগণকে সচেতন করতে চাই। মাস্ক দেখানোর জন্য নয়, নিজের স্বার্থে পরতে হবে। নিজে বাঁচলে বাপের নাম। নিজে বাঁচি অন্যকে বাঁচাই। নিজের পরিবার সুস্থ থাকলে। অন্যের পরিবারও সুস্থ থাকবে।’

শনিবার (২২ জানুয়ারি) বেলা সাড়ে ১১টার দিকে রাজধানীর কাওরান বাজারস্থ ডিএনসিসির আঞ্চলিক অফিসের সামনে ‘মাস্ক আমার, সুরক্ষা সবার’ ক্যাম্পেইনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) মেয়র মো. আতিকুল ইসলাম এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, ইতোমধ্যে আমরা উত্তর সিটি করপোরেশনের পক্ষ থেকে ৩২ লাখ মাস্ক বিতরণ করেছি। আজকে থেকে প্রায় তিন লাখ হ্যান্ড স্যানিটাইজার বিতরণ শুরু করেছি। মাস্ক পড়ার জন্য জনগণকে আমরা উদ্বুদ্ধ করছি, বিভিন্ন মার্কেট ও হোটেলে যাচ্ছি।

তিনি বলেন, মাস্ক পরলে আমার পরিবার সুস্থ থাকবে। এই শহর ও দেশ সুস্থ থাকবে। মাস্ক আমার, সুরক্ষা সবাই এই ধারণা নিয়ে আমরা নেমেছি। প্রতিটি ওয়ার্ডে ওয়ার্ডে এই কার্যক্রম আজ থেকে শুরু হচ্ছে।

মেয়র বলেন, আপনারা দেখেছেন গত বছর রোজার আগে মার্কেটগুলো বন্ধ করে দিয়েছিলাম। যদি আমরা দেখি মার্কেটের ভেতরে স্বাস্থ্যবিধি তোয়াক্কা না করে বেচাকেনা হচ্ছে, তাহলে সেই দোকান বন্ধ হয়ে যাবে। এরই মধ্যে আমরা সেই নির্দেশ দিয়েছি। কিন্তু তার আগে জনসচেতনতামূলক ক্যাম্পেইন চালাতে চাই। হুট করে আমরা কোনো কিছু বন্ধ করতে চাই না। মানুষকে সচেতন করতে চাই।

নগরবাসী, মার্কেটের সব দোকানদার ও বিভিন্ন ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের সবাইকে মাস্ক পরার অনুরোধ জানিয়ে মেয়র বলেন, সবার সহযোগিতা আমাদের প্রয়োজন। একা কাউন্সিলর ও সিটি করপোরেশনের পক্ষে সম্ভব না মানুষকে সচেতন করা। মসজিদের ইমাম ও মোয়াজ্জেমরা প্রতি ওয়াক্তে এবং জুম্মার নামাজের সময় মুসল্লিদের সব সময় মাস্ক পরার মেসেজ দেবেন।

বৈশাখী নিউজ/ এপি